সীতাকুণ্ডে কুপিয়ে অন্তঃসত্বা গৃহবধূকে হত্যা

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ডে রোকসানা আক্তার (২৩) নামে এক গৃহবধূর অগ্নিদ্বগ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার বাঁশবাড়িয়ায় অবস্থিত গৃহবধূর শ্বশুড় বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত গৃহবধূর লাশ দ্বগ্ধ হলেও তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। ফলে এটি পরিকল্পিত হত্যা বলে ধারণা করছে পুলিশ। রোকসানা উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর বাঁশবাড়িয়া রহমতের পাড়ার গোলাম কিবরিয়ার স্ত্রী। সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

স্থানীয় যুবক কাজী টুটুল জানান, একই বাড়িতে গোলাম কিবরিয়ার পরিবারের সাথে তার ভাইয়ের পরিবারও বসবাস করছেন। জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ ছিলো। ধারণা করা হচ্ছে বড় ভাইয়ের সাথে বিরোধের জেরে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে হত্যা করেছে। বুধবার দুপুরে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া রহমতের পাড়া গ্রামে গৃহবধূ রোকসানা আক্তারের অগ্নিদ্বগ্ধ লাশ নিজ ঘরে পড়ে আছে এমন খবর পেয়ে সীতাকুণ্ড থানার ওসি তোফায়েল আহমেদের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে সন্ধ্যায় সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করে লাশ পোষ্টমর্টেমের জন্য প্রেরণ করেন।

স্থানীয় যুবক কাজী টুটুল জানান, একই বাড়িতে গোলাম কিবরিয়ার পরিবারের সাথে তার ভাইয়ের পরিবারও বসবাস করছেন। জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ ছিলো। ধারণা করা হচ্ছে বড় ভাইয়ের সাথে বিরোধের জেরে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে হত্যা করেছে। ওসি তোফায়েল আহমেদ বলেন, এটি পরিকল্পিত হত্যা। গৃহবধূর মাথায় একাধিক ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। হত্যা শেষে আত্নহত্যা বলে চালিয়ে দেবার জন্য তার গায়ে কেরোসিন বা অন্য কোন দাহ্য পদার্থ দিয়ে আগুন লাগানো হয়। লাশ পোষ্টমর্টেমের জন্য প্রেরণ করেছি। এ বিষয়ে মামলা দায়ের হবে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে গৃহবধূর স্বামী, ভাসুর এবং তার স্ত্রীকে থানায় নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, নিহত গৃহবধূ  রোকসানা উপজেলার ভাটিয়ারী ইউনিয়নের  মাদামবিবিরহাটস্থ নেভী রোডের বাসিন্দা নুর আলমের কন্যা। গত এক বছর আগে বাঁশবাড়িয়ার গোলাম কিবরিয়ার সাথে তার বিয়ে হয়। বর্তমানে তিনি ৬-৭ মাসের অন্তঃসত্বা।

ক্যালেন্ডার
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
Scroll to Top