সিএমপির আওতা বাড়ছে

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) সেবা কার্যক্রমের আওতা বাড়ছে। দূরত্বের কারণে নগরীর কাছাকাছি এলাকার যেসব মানুষ পুলিশের সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন, তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই নতুন চারটি থানা গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

হাটহাজারী, সীতাকুণ্ড ও পটিয়া থানাকে ভেঙে নতুন এসব থানা স্থাপন করা হবে। সহসাই নতুন এই প্রস্তাব বিভাগীয় কমিশনারের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

আয়তন বাড়িয়ে নতুন চারটি থানার গঠনের বিষয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ৩০৪ দশমিক ৬৬ বর্গকিলোমিটার আয়তনের সিএমপিতে বর্তমানে থানার সংখ্যা ১৬টি।

জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক, হাটহাজারী, পটিয়া ও সীতাকুণ্ডের ইউএনও, সিএমপির বায়েজিদ, কর্ণফুলী, আকবরশাহ ও চান্দগাঁও থানার ওসি এবং তিন উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যনগণ এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

যেসব এলাকা নিয়ে নতুন চার থানা স্থাপনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে তা হলো, হাটহাজারী থানাধীন ১৩ নম্বর দক্ষিণ মাদার্শা, ১৪ নম্বর শিকারপুর, ১৫ নম্বর বুড়িশ্চর ইউনিয়ন নিয়ে নতুন কুয়াইশ থানা, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ১ নম্বর দক্ষিণ পাহাড়তলী ওয়ার্ড, ১১ নম্বর ফতেপুর ও ১২ নম্বর চিকনদণ্ডী ইউনিয়ন নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থানা, সীতাকুণ্ড মডেল থানা এলাকার ৮ নম্বর সোনাছড়ি, ৯ নম্বর ভাটিয়ারি ও ১০ নম্বর সলিমপুর ইউনিয়নের আংশিক এলাকা নিয়ে গঠিত হবে ফৌজদারহাট থানা এবং পটিয়া থানাধীন ৪ নম্বর কোলাগাঁও, ৫ নম্বর হাবিলাসদ্বীপ, ৬ নম্বর কুসুমপুরা ও ৭ নম্বর জিরি ইউনিয়ন নিয়ে কালারপোল থানা।

প্রসঙ্গতঃ ১৯৭৮ সালে প্রায় ২০৭ বর্গকিলোমিটার আয়তনে ছয়টি থানা নিয়ে চট্টগ্রাম নগর পুলিশের যাত্রা শুরু হয়। ২২ বছর পর ২০০০ সালের ২৭ মে সিএমপিতে নতুন আরো ছয়টি থানা যুক্ত হয়। থানাগুলো হলো, খুলশী, বায়েজিদ বোস্তামী, পতেঙ্গা, বাকলিয়া, হালিশহর ও কর্ণফুলী থানা। এর ১৩ বছর পর ২০১৩ সালের ৩০ মে নুতন আরো চারটি থানা স্থাপিত হয়। এগুলো হলো, আকবরশাহ, সদরঘাট, চকবাজার ও ইপিজেড থানা। সবমিলিয়ে বর্তমানে সিএমপির থানার সংখ্যা ১৬টি।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত গতকালের বৈঠকে সিএমপির সেবার আওতা বাড়াতে জেলার অংশ বিশেষ নিয়ে প্রস্তাবিত থানার বিবরণী তুলে ধরেন নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি-এস্টেট এন্ড ডেভেলপমেন্ট) এস এম মোস্তাইন হোসাইন।

জানতে চাইলে ডিসি মোস্তাইন হোসাইন জানান, সীতাকুণ্ড, হাটহাজারী ও পটিয়ার ১৩টি ইউনিয়ন নিয়ে নতুন চার থানা গঠনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ইউনিয়নগুলো জেলার ওই তিন থানা সদর থেকে দূরে আবার সিএমপির অতি সন্নিকটে। চারটি থানার প্রাথমিক নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। পরে এসব নাম পরিবর্তন করা হতে পারে। যেমন- বৈঠকে ‘কুয়াইশ’ থানার নাম পরিবর্তন করে ‘মদুনাঘাট’ নামটি দেয়ার প্রস্তাব ওঠেছে। আবার ‘ফৌজদারহাট’ নামটি পরিবর্তন করে ‘কালুশাহ’ থানা নাম দেয়ার প্রস্তাব করেছেন কেউ কেউ। সবকিছু বিবেচনা করে সবার সম্মতিক্রমে যেভাবে সুন্দর হয় সেভাবেই করা হবে।

ডিসি মোস্তাইন বলেন, আমরা আরো বৈঠক করবো। সবকিছু ফাইনাল করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ফাইল মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।