রাঙ্গুনিয়ায় দুই ভাই খুনের ঘটনায় পলাতক দুই আসামি গ্রেফতার

রাঙ্গুনিয়ায় দুই ভাইকে ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার পলাতক দুই আসামি মোর্শেদ ও সাইফু।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় আপন দুই ভাইকে একসাথে ছুরিকাঘাতে খুনের ঘটনার পলাতক দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৭।

বুধবার (২১ ডিসেম্বর) দুপুরে তাদের দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।  সোমবার তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তারা হলেন, মো. মোর্শেদুল আলম (২২) এবং তার বড় ভাই মো. সাইফুল ইসলাম প্রকাশ সাইফু (৪২)। তারা উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড পশ্চিম খুরুশিয়া মধ্যমপাড়া গ্রামের মো. শফিকুল ইসলামের ছেলে। এর আগে খুনের সময় ঘটনাস্থল থেকে তাদের পিতা শফিকুল ইসলাম ও অপর ভাই খোরশেদ আলমকেও পুলিশ গ্রেফতার করেছিল। তারা সবাই খুনের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার এজাহার নামীয় আসামি।

গত ১৬ ডিসেম্বর বিকেল পাঁচটার দিকে পদুয়া ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড পশ্চিম খুরুশিয়া গ্রামে গ্রেফতারকৃতরা গরুর গলা থেকে রশি খুলে নেয়াকে কেন্দ্র করে জালাল উদ্দিন (২৫) ও তার ছোট ভাই কামাল হোসেনকে (২২) ছুরিকাঘাতে খুন করে। তারা একই গ্রামের জহিরুল ইসলামের ছেলে। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হন মো. ইদ্রিছ এবং তার তিন ছেলে মো. বাদশা, সালাউদ্দিন ও মো. রানা।

র‍্যাব সুত্রে জানা যায়, আসামি সাইফু (৪২) গ্রেফতার এড়ানোর জন্য চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানাধীন পূর্ব নিমতলা ডিয়ারপাড়া একটি বিল্ডিং এর ৪র্থ তলায় আত্মগোপন করে আছে। গোপন সংবাদে খবর পেয়ে গত ২০ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে অপর আসামী মো. মোর্শেদুল আলমকে মহানগরের বন্দর থানাধীন বেচাশাহ রোডস্থ পশ্চিম গোসাইল ডাংগা একটি বাড়ি থেকে রাত দেড়টার দিকে গ্রেফতার করে দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়। আপন দুই ভাইকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যার প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার কথা তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।

দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি ওবাইদুল ইসলাম গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে দু’জনকে এবং মামলার ৭২ ঘন্টার মধ্যে পলাতক বাকী দুই আসামিকে আমরা গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত ১০/১৫ দিন পূর্বে নিহত ভিকটিমের পরিবারের গৃহপালিত গরুর খুঁটিসহ রশি মাঠ থেকে চুরি হয়ে যায়। এরপর গত ১৬ ডিসেম্বর সকাল ১১টার দিকে ভিকটিম জালাল পূর্বের ন্যায় তাদের গৃহপালিত গরু নিয়ে ক্ষেতে গিয়ে দেখতে পায় যে মো.  শফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি তাদের চুরি হওয়া রশি দিয়ে তার গৃহপালিত গরু বেঁধে রেখেছে। তখন ভিকটিম জালাল উদ্দিন উক্ত ব্যক্তিকে রশি কোথায় পেয়েছে বলে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বাগবিতণ্ডা হয় এবং একপর্যায়ে হাতাহাতি হলে শফিকুল ইসলাম সামান্য আহত হলে তাকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়।