মহেশখালীতে বনবিভাগের ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে মামলা

প্যারাবন কেটে চিংড়ি ঘের প্রচেষ্টা রুখে দিল।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

মহেশখালী প্রতিনিধি: কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক বগাচতর এলাকায় প্যারাবনের শত শত বাইন গাছ কেটে ভূমিদস্যুদের নেতৃত্বে গড়ে উঠা চিংড়িঘেরে বাঁধ কেটে দিয়ে সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করেছে বন বিভাগ। চট্টগ্রাম উপকূলীয় বনবিভাগের আওতাধীন মহেশখালী গোরকঘাটা রেঞ্জ কর্মকর্তা আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে কালারমারছড়া বিট কর্মকর্তা নুরে আলম মিয়াসহ একদল সঙ্গীয় ফোস নিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

শনিবার সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত চলে এ উচ্ছেদ অভিযান। প্রায় ৭ ঘণ্টার অভিযানে ঘেরের বাঁধ কেটে দিয়ে সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করা হয়। এসময় গুটিয়ে দেওয়া হয় বাঁধ নিমার্ণের স্কেভেটার।

দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকায় সরকারী প্যারাবনের বাইনগাছ কেটে প্রায় ৩শ একর জায়গায় চিংড়ি ঘের নির্মাণ করে আসছিল ওই ভূমিদস্যুরা।

অবশেষে সরকারী জায়গা দখলমুক্ত হওয়ায় জনমনে স্বস্তি ফিরেছে বলে জানিয়েছেন বনবিভাগের লোকজন। চিংড়িঘের নিমার্ণে জড়িত থাকার অভিযোগে ঝাপুয়া বিট কর্মকতা মাহাবুব রহমান বাদি হয়ে বন আইনে ২টি ও মহেশখালী থানায় আলাদা একটি এজাহার দায়ের করেছে।

ওই দিকে উক্ত মামলায় এরশাদ, শাহাদাতসহ নাম উল্লেখ করে ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা দেখানো হয়েছে।

মহেশখালী গোরক রেঞ্জ কর্মকর্তা আনিসুর রহমান রবিবার (১৫ জানুযারী) রাত ৮ টার সময় মামলা বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করে  জানান, হোয়ানকের কালাগাজি পাড়ায় সরকারি প্যারাবনের প্রায় আড়াই হাজার ছোট-বড় বাইন গাছ কাটা হয়েছে। আর অভিযান চালিয়ে বাঁধ কেটে সরকারী জায়গা দখল মুক্ত করা হয়।