ভিসা প্রতারকদের গ্রেফতার করায় পুলিশকে ধন্যবাদ মার্কিন দূতাবাসের

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: মার্কিন দূতাবাসের সঙ্গে সমন্বয় করে ভিসা পাওয়ার জন্য জাল নথি তৈরিকারী ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। ভিসা জালিয়াতি মোকাবেলায় এই যৌথ সহযোগিতার প্রশংসা করেছে মার্কিন দূতাবাস।

রোববার মার্কিন দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ ও টুইটারে বাংলাদেশ পুলিশকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

মার্কিন দূতাবাস সূত্রে জানা যায়, মার্কিন ভিসা আবেদনকারীরা আবেদনপত্রে যে তথ্য প্রদান করেন এবং সাক্ষাৎকারে যেসব নথি সংযুক্ত করেন তার সত্যতা নিশ্চিত করা আবেদনকারীর দায়িত্ব। সম্ভাব্য ভিসা আবেদনকারীর জন্য সর্বোত্তম নির্দেশিকা হলো দূতাবাসের ওয়েবসাইটে প্রদত্ত তথ্য পর্যালোচনা করা এবং যে কোনো সহায়ক ডকুমেন্টেশনের সঙ্গে তাদের সাক্ষাতকারের জন্য প্রস্তুত থাকা ও ভিসা প্রক্রিয়া এবং সাক্ষাৎকারের সময় বাস্তব তথা সত্য বলা।

দূতাবাসের বার্তায় স্পষ্ট করে বলা হয়, মিথ্যা তথ্য বা জাল নথি উপস্থাপনের জন্য শুধুমাত্র ভিসা প্রত্যাখ্যানই হয় না, ভবিষ্যতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণেও এটা বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এটাকে অযোগ্যতা হিসাবে দেখা হয়।

উল্লেখ্য, গুলশান থানায় দায়ের করা মার্কিন দূতাবাসের মামলার সূত্র ধরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম (উত্তর) ঢাকা মহানগরীর রামপুরা থানা এলাকা থেকে ভিসা জালিয়াতি চক্রের সাতজনকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃতরা হলো- মো. রেজাউল ইসলাম (৬০), সাইফুল ইসলাম (৪০), মো. আজিজুর রহমান (৪৮), মো. খায়রুল কবির (৩৩), সাদেকুর রহমান (৪১), মো. শাহরিয়ার হোসেন বিক্রম (৩০) ও মুহাম্মদ আবু বক্কর (৪৭)।

বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে রাজধানীর রামপুরা থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২০টি জাল সিল, ২টি সিল প্যাড, ৯টি পাসপোর্ট, ৪টি ভুয়া আইডি কার্ড, ১টি পেনড্রাইভ, ২টি মোবাইল ফোন ও বিপুল পরিমাণ জাল কাগজপত্র উদ্ধার করা হয়।