বোয়ালখালীতে সিএনজি চালক হত্যাকান্ডে জড়িত গ্রেফতার ৩

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সিএনজি চালাক মোঃ হেলালকে হত্যাকান্ডে জড়িত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে র্যাব-৭।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

বোয়ালখালী প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সিএনজি চালাক মোঃ হেলালকে হত্যাকান্ডে জড়িত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- উপজেলার পশ্চিম শাকপুরা এলাকার মো.মনু মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ বখতিয়ার (২৭), একই এলাকার মো. শফিকের ছেলে মো. ইলিয়াস (৩৫) ও মধ্যম শাকপুরার মৃত আহমেদ ছফার ছেলে মনির আহম্মদ প্রকাশ মেহেরাজ (২৬)।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল এম এ ইউসুফ এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, আমরা তিন ঘাতককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। এরমধ্যে গতকাল রাতে নগরীর শাহ আমানত ব্রিজ এলাকা থেকে মোহাম্মদ বখতিয়ারকে, চাকতাই এলাকা থেকে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী মো. ইলিয়াসকে এবং বোয়ালখালী পৌরসদরের মীরপাড়া থেকে মনির আহম্মদ প্রকাশ মেহেরাজকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার আসামিরা হেলালকে হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

মনির আহম্মদ ওরফে মেহেরাজ নামে দুজনকে ভাড়া করে হেলাল উদ্দিনকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় ইলিয়াস হেলাল উদ্দিনকে তার সিএনজি কেনা-বেচার উদ্দেশ্যে কথা বলার জন্য বোয়ালখালী পৌরসভার সিও অফিস সংলগ্ন একটি সিএনজি স্টেশনে আসতে বলে। হেলাল উদ্দিন ওই জায়গায় ইলিয়াসের সাথে দেখা করে। ইলিয়াস হেলালের সিএনজিসহ তাকে নিয়ে সিএনজি কেনার কথা বলে উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নের পোস্ট অফিস সড়ক থেকে একটু ভিতরে দুর্গম এলাকার একটি খালি জায়গায় নিয়ে যায়। আরও একটি সিএনজি নিয়ে তার অপর সহযোগী বখতিয়ার ও মেহেরাজ হেলাল উদ্দিনের সিএনজির পিছন পিছন তাদের কাছে উপস্থিত হয়। এরপর মিস্ত্রী ইলিয়াস হেলালকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে থাকে। বখতিয়ার কাঠের লাঠি দিয়ে হেলাল উদ্দিনের মাথায় আঘাত করে ও মেহেরাজ তাৎক্ষণিকভাবে তার সাথে থাকা ছুরি দিয়ে পিঠে ছুরিকাঘাত করে। এতেও ক্লান্ত না হয়ে ইলিয়াস সিএনজি থেকে হাতুড়ি নিয়ে এসে হেলালের মাথায় উপুর্যপরি আঘাত করে এবং মৃত্যু নিশ্চিত করে ইলিয়াস হেলালের সিএনজি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ইলিয়াসের দুই সহযোগী বখতিয়ার ও মেহেরাজ মিলে লাশটি পাশের একটি ধানের জমির উপর রেখে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় ৪ ডিসেম্বর নিহত হেলালের স্ত্রী বাদী হয়ে ৫ জনকে এজাহারনামীয় ও অজ্ঞাতনামা তিন চারজনকে আসামিকে করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ দিনই আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য তার স্ত্রী র‌্যাবের কাছে একটি লিখিত আবেদন করেন। এ ঘটনায় র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। গতকাল রাতে নগরীর শাহ আমানত ব্রিজ এলাকা থেকে মোহাম্মদ বখতিয়ারকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর চাকতাই এলাকা থেকে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী মো. ইলিয়াসকে এবং বোয়ালখালী পৌরসদরের মীরপাড়া থেকে মনির আহম্মদ প্রকাশ মেহেরাজকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার আসামিরা হেলালকে হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।গ্রেফতারকৃত আসামিদের বোয়ালখালী থানায় হস্তান্তরের বিষয়টি নিশ্চিত করে অফিসার ইনচার্জ আবদুর রাজ্জাক বলেন, তিনজন আসামের মধ্যে ইলিয়াস এজাহেরভুক্ত আসামী।