বাঁশখালীতে টিসিবির পণ্য মুদি দোকানে বিক্রি,প্রশাসনের সহযোগিতায় জব্দ

টিসিবির পণ্য মুদি দোকানে বিক্রির সময় ১টি ট্রাক জব্দ ও চালক-হেল্পার, লেবার-সহ ৪ জনকে আটক করেছে উপজেলা প্রশাসন
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

বাঁশখালী  প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে স্থানীয় সাংবাদিকদের সহযোগিতায় টিসিবির পণ্য মুদি দোকানে বিক্রির সময় ১টি ট্রাক জব্দ ও চালক-হেল্পার, লেবার-সহ ৪ জনকে আটক করেছে উপজেলা প্রশাসন। এসব পণ্য গতকাল (২০ সেপ্টেম্বর) বাহারছড়া ইউনিয়নে টিসিবির পণ্যের উপকারভোগীদের মাঝে বিতরণ করার কথা ছিল। বিষয়টি নিয়ে বাঁশখালী জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১টার দিকে সাধনপুর ইউনিয়নের পূর্ব বৈলগাঁও এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

জব্দকৃত পণ্যের মধ্যে রয়েছে—৩৬ কার্টুন সয়াবিন তেল, ১৬ বস্তা চিনি, ১৩ বস্তা ডাল। যার সরকারি ভর্তুকি মূল্য ১ লক্ষ ৩০ হাজার ২৫০ টাকা। তবে এ ঘটনায় জড়িত ডিলারের প্রতিনিধি মো. মারুফুল হক ও রাহাদুল আলম রিয়াদ পালিয়ে গেলেও ট্রাক চালক, হেল্পার, লেবার সহ মোট ৪জনকে আটক করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, টিসিবির পণ্যের ডিলার মেসার্স আমান এন্ড ব্রাদার্সের দুটি ট্রাক থেকে গুণাগরি বাজারের কয়েকটি দোকানে মালামাল সরবরাহ করার সময় কয়েকজন সাংবাদিক দেখে ফেলে। পরে ট্রাক দুটির পিছু নিয়ে ধাওয়া দিলে বৈলগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে ১টি ট্রাক আটক করতে সক্ষম হন। অপরটি পালিয়ে যায়। এসময় বিষয়টি বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাঈদুজ্জামান চৌধুরীকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে হাজির হন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার মাহমুদুল হাসান।

এ সময় ট্রাকে থাকা বৈলগাঁও এলাকার সেহাবুল হকের ছেলে ছাত্রলীগ নেতা মো. মারুফুল হক ও বাণীগ্রামের তৌহিদুল আলমের ছেলে রাহাদুল আলম রিয়াদ সাংবাদিকদের ট্রাক চাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় সংবাদকর্মী বাঁশখালী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জসীম উদ্দিন বলেন, টিসিবির পণ্য চুরি করে রাতের আঁধারে গুনাগরীতে আলম স্টোর নামক একটি দোকানে বিক্রি করার সময় ভিডিও ধারণ করতে গেলে আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে হামলার চেষ্টা করে ছাত্রলীগ নেতা মারুফ। পরে ট্রাক চাপা দিতে চায়। এসময় সে বারবার বাঁশখালী উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিরা মনির সাথে বারবার কথা বলাই দিতে চায়। এসময় সে বলে, মালামালও সরকারি, আমরা সরকারি মানুষ। আপনারা কারা? আপনারা কিসের সাংবাদিক?’

জানা যায়, এ ঘটনায় জড়িত মো. মারুফুল হক বাঁশখালী উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক  হীরা মনির মামাতো ভাই। সেই সুবাদে হীরা মনির নাম ভাঙ্গিয়ে অপকর্ম করে আসছিলেন মারুফ।

আটক ট্রাক চালক ও হেল্পার জানান, বাহারছড়া থেকে এ পর্যন্ত ভাড়ায় আসলাম। মারুফ নামের এক যুবক গাড়ী ভাড়া করেছে। আজ থেকে ১ সপ্তাহ আগেও দুই ট্রাক মাল বিক্রি করছে ওরা।

অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মেসার্স আমান এন্ড ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী ও সাধনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আহসান উল্লাহ চৌধুরীর বড় ভাই আমান উল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘যে মালামালগুলো জব্দ করা হয়েছে এসব আমার নয়। আমি গতকালকে বাহারছড়ায় মালামাল বিতরণ করেছি। আমার এসবের ডকুমেন্টস আছে। আপনি উপজেলা আসলে প্রত্যয়নপত্রসহ সব কাগজ দেখাতে পারবো। আমার সাথে বাঁশখালীর বর্তমান এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর সাথে সম্পর্ক নেই। আমি এসব তাদের ষড়যন্ত্র মনে করছি। ভাইজান একটা কথা আছে না, যত দোষ নন্দ ঘোষ।’

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট  খন্দকার মাহমুদুল হাসান বলেন, ‘ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সরকারের ভর্তুকি মূল্য বিক্রয়ের জন্য সংরক্ষিত টিসিবির পণ্য  ট্রাকে করে বিক্রিয় কালে টিসিবির পণ্যসহ একটি ট্রাক জব্দ করেছি। এই সময় টিসিবির পণ্য পরিবহনকারী ট্রাকের ড্রাইভার ও হেলপার কে আটক করা হয়েছে। মালামালসহ জব্দকৃত ট্রাক বাঁশখালী থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সাথে জড়িত ডিলারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।