জামিজুরী রেললাইন সড়কের পাশে চলাচলের রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ার মানববন্ধন

: চট্টগ্রাম চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী-কক্সবাজার রেল লাইন প্রকল্পের কাজ চলমানে
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

চন্দনাইশ প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী-কক্সবাজার রেল লাইন প্রকল্পের কাজ চলমানে দোহাজারী পৌরসভার ৬নং (পূর্বে ৫নং) ওয়ার্ড পশ্চিম জামিরজুরী গ্রামের জামিরজুরী রজবিয়া আজিজিয়া সুন্নিয়া ফাযিল (ডিগ্রি) মাদরাসার পূর্ব- উত্তর পার্শ্বে রেল লাইন সংলগ্ন পৌরসভার ১টি ওয়ার্ড ও পার্শ্ববর্তী হাশিমপুর ইউনিয়নের ২টি ওয়ার্ডের এলাকাবাসীদের উদ্যোগে রেলওয়ের জায়গায় চলাচলের রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর মানববন্ধন করেন। উক্ত মানববন্ধনে এলাকাবাসী দাবী করেন দীর্ঘ দিনের চলাচলের রাস্তা সংযোগ দিয়ে দোহাজারী-কক্সবাজার রেলওয়ে প্রকল্প বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুরোধ করেন সকল স্তরের জনসাধারণ।

বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকাল তিনটায় স্থানীয় কয়েক শতাধিক জনসাধারণ এ মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেন। মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা রেলওয়ের জায়গায় বন্ধ হয়ে যাওয়া চলাচলের রাস্তা এড়িয়ে চলাচলের জন্য নতুন রাস্তা নির্মাণ করে দেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, মাননীয় রেল মন্ত্রী, চট্টগ্রাম-১৪ আসনের মাননীয় এমপি, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, রাজস্ব/এল.এ, প্রকল্প পরিচালক- দোহাজারী-কক্সবাজার রেলওয়ে প্রকল্প, চন্দনাইশ উপজেলা চেয়ারম্যান, পরিচালক- পূর্ব অঞ্চল, চট্টগ্রাম রেলওয়ে, চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও দোহাজারী পৌর প্রশাসক এর নিকট বিনীত অনুরোধ জানাই।

অত্র এলাকার নারী-পুরুষরা বিভিন্ন ব্যানার নিয়ে রেলওয়ে রাস্তার পার্শে অবস্থান করেন। পাশাপাশি চলাচলের সংযোগ সড়ক রেখে অতিদ্রুত দোহাজারী-কক্সবাজার রেলওয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করারও আহবান জানান। এতে অংশগ্রহণ করেন বিলুপ্ত দোহাজারী ইউনিয়ন পরিষদে সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বেগম, মরহুম আবুল কাশেম লেদু চেয়ারম্যান ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলহাজ্ব লোকমান হাকিম, শহিদ মেম্বার, কাজী হাসান, কাজী আবদুল মোমেন লাভলু, সাতবাড়িয়া স্কুলের শিক্ষক মোহাম্মদ আবদুল আজিজ, আলাউদ্দিনসহ স্থানীয় সকল জনসাধারণ, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ কয়েকশত নারী-পুরুষ অংশ নেন।

মানববন্ধনে উপস্থিত কয়েকজন মুরুব্বি আবেগ বিজড়িত কন্ঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকের কাছে তাদের শত বছরের গণমানুষের চলাচলের রাস্তাটির রক্ষার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার আবেদন জানান। তারা আরোও জানান এই রাস্তা দিয়ে জামিজুরী ও হাশিমপুর ইউনিয়নের সংযোগ সড়ক হওয়ায় দুই হাজারের বেশি মানুষ নিয়মিত যাতায়াত করেন। এই রাস্তাটি ছিল বলে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসীরা প্রতিবেশীদের কাছ থেকে জমি কিনে বাড়ি করে বসবাস করে আসছেন। এই রাস্তাটি বন্ধ হয়ে গেলে পাড়া থেকে মহাসড়কে আসতে ২ কিলোমিটার ঘুরে বিকল্প পথ দিয়ে আসতে হবে গ্রামবাসীকে। এতে করে গ্রামবাসীকে ভোগান্তিতে পড়তে হবে। কৃষিপণ্য বাজারে আনতেও সমস্যার সম্মুখীন হবেন তাঁরা। এর সমাধান না হওয়া পর্যন্ত এলাকাবাসীর সঙ্গে থেকে কঠোর হুঁশিয়ারির মাধ্যমে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন বক্তরা।

দোহাজারী-কক্সবাজার রেলওয়ে প্রকল্পের পরিচালক জানান- নতুন রেললাইন নির্মাণ হলে এলাকাবাসীর চলাচলের সড়কটি বন্ধ হয়ে যাবে।