চীনের হুমকি উপেক্ষা করে তাইওয়ানে পেলোসি

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: তাইওয়ানে পৌঁছেছেন মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ (কংগ্রেস)-এর স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তাইপেতে তার এই সফর বেইজিং এর সাথে আমেরিকার উত্তেজনার পারদকে বিপজ্জনক সীমায় নিয়ে যাবে।

মঙ্গলবার (২ আগষ্ট) তাইওয়ানের স্থানীয় সময় রাত ১০টা ৪৪ মিনিটে পেলোসিসহ তার সঙ্গে আসা কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলটি তাইপের সোংসান বিমানবন্দরে মার্কিন বিমানবাহিনীর একটি বোয়িং সি-৪০সি বিমানে করে পৌঁছায়। এই ফ্লাইটের নামকরণ করা হয়েছে স্পার-১৯। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে তাইওয়ান নিউজ।

তাইওয়ানে নামার পরপরই একাধিক টুইট করেছেন পেলোসি। টুইটে তিনি লিখেন, তিনি ও তার প্রতিনিধিদলের তাইওয়ান ভ্রমণ তাইওয়ানের চমৎকার গণতন্ত্রের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের দৃঢ় সমর্থনকে সম্মান জানায়।

টুইট বিবৃতিতে পেলোসি জানান, বিশ্ব এখন স্বৈরতন্ত্র ও গণতন্ত্রের মধ্যে যেকোনো একটিকে বেছে নেওয়ার সুযোগের মুখোমুখি হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে তাইওয়ানের সঙ্গে আমেরিকার ২৩ মিলিয়ন মানুষের একাত্মতা আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

টুইটে ন্যান্সি লিখেন, তাদের এ সফর ১৯৭৯ সালের তাইওয়ান রিলেশন অ্যাক্টস, ইউএস-চায়না জয়েন্ট কমিউনিকস, ও দ্য সিক্স অ্যাসুরেন্সের দ্বারা পরিচালিত যুক্তরাষ্ট্রের নীতিমালার সঙ্গে কোনোভাবেই সাংঘর্ষিক নয়।

তাইওয়ানে নামার পর সফরসঙ্গীদের সঙ্গে টুইটারে নিজের একটি ছবিও প্রকাশ করেছেন ন্যান্সি পেলোসি। ছবিটি ইতোমধ্যে রিটুইট করেছেন ২০০০ মানুষ।

এদিকে পেলোসি তাইওয়ান সফর এলে সামরিক পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিল চীন। বেইজিং বলেছে, (তিনি সফর করলে) চীনা সেনাবাহিনী নিশ্চুপ বসে থাকবে না। তাইওয়ানকে চীন নিজের ভূখণ্ড বলেই দাবি করে।

তবে গত সোমবারই যুক্তরাষ্ট্র জানায়, তারা চীনের ‘রণহুঙ্কারে’ ভীত নয়। অর্থাৎ, পেলোসির নির্ধারিত সফর বাতিল করা হবে না।

সূত্র: এনডিটিভি