গোয়ালন্দে ভিক্ষার টাকা ছিনিয়ে নিতেই মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে হত্যা: পুলিশ

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধ তৈয়ব পেয়াদার (৭০) কাছ থেকে ভিক্ষার টাকা ছিনিয়ে নিতেই নৃশংসভাবে হত্যা করা হয় তাকে। বুধবার রাতে গ্রেপ্তার হওয়া সাঈদ ফকিরের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করে পুলিশ।

গ্রেফতার সাঈদ ফকির গোয়ালন্দ পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নছরউদ্দিন সরদার পাড়ার চেনের উদ্দিন ফকিরের ছেলে।

গত ৭ মে গোয়ালন্দ শহরের এফকে টেকনিক্যাল কলেজের বারান্দা থেকে মানসিক ভারসাম্যহীন তৈয়ব পেয়াদার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মামুন পেয়াদা অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা করেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তৈয়ব পেয়াদা ঝালকাঠির নলছটি উপজেলার দক্ষিণ ডোবরা গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনার প্রায় ৩ মাস আগে তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন হারিয়ে ফেলেন এবং এক পর্যায়ে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাচ্ছিল না পরিবার। তৈয়ব পেয়াদা খুন হওয়ার পর পুলিশের মাধ্যমে পরিবার তার সম্পর্কে জানতে পারে।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার গণমাধ্যমকে বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার রাতে উপজেলার মইজদ্দিন মণ্ডল পাড়া এলাকা থেকে সাঈদ ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করা হয়।

ওসি আরও জানান, গ্রেপ্তার সাঈদ ফকিরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।