ক্লাব নিবন্ধনে অনিয়ম; রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচনে আদালতের নিষেধাজ্ঞা

ক্লাব নিবন্ধনে অনিয়ম; রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচনে আদালতের নিষেধাজ্ঞা।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

রাঙামাটি প্রতিনিধি: নিয়ম ভঙ্গ করে ক্লাব নিবন্ধন দেওয়ার অভিযোগে আদালতে মামলার প্রেক্ষিতে আগামী ১১ই অক্টোবর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী ২০২২-২০২৬ পরিষদের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে আদালত।

বৃহস্পতিবার রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক তাওহীদুল হক এই সংক্রান্ত আদেশ প্রদান করেন। রাঙামাটির রিজার্ভ বাজারের ঐতিহ্যবাহী নবীন সংঘ ক্লাবের পক্ষে ক্রীড়াবিদ শাওয়াল উদ্দিন বাদি হয়ে চলতি বছরের পহেলা সেপ্টেম্বর আদালতে মামলাটি দায়ের করেছিলেন। এই মামলায় রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে ১নংও সংস্থাটির সাধারণ সম্পাদককে ২নং বিবাদী করা হয়।

এই মামলার বাদীপক্ষের অ্যাডভোকেট আব্দুল গাফফার মুন্না জানিয়েছেন, বিগত বছরের পর বছর আইন না মেনে নিজেদের পছন্দনুসারে ক্লাবগুলোকে নিবন্ধন দিয়ে আসছে রাঙামাটি জেলা ক্রিড়া সংস্থা কর্তৃপক্ষ। যার ধারাবাহিকতায় এবারও একইভাবে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে ক্রীড়া সংস্থার গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ-৭(এ্যাফিসিলিয়ন) সংক্রান্ত বিধি বিধানের সহিত সাংঘর্ষিক ও বিধিবিধানের সরাসরি লংঘন করে ৬টি ক্লাবের আবেদন বাতিল করে অনৈতিকভাবে কমিটির পছন্দের দুইটি ক্লাববে নিবন্ধনের জন্য সিলেক্ট করে। তাই সংশ্লিষ্ট্য আইনানুসারে আদালতের আশ্রয় নিয়েছে আমার মক্কেল। আমরা আদালতের কাছে জেলা ক্রীড়া সংস্থার এই ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে সকলপ্রকার আইনী দিক তুলে ধরেছি এবং গঠনতন্ত্রের প্রয়োজনীয় ধারাগুলো আদালতের দৃষ্টিগোচর চেষ্ঠা করেছি। এতে আদালত বিষয়টি অনুধাবন করে আগামী ২৫শে অক্টোবর পর্যন্ত রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠানে নিষেধাজ্ঞা জারির আদেশ দিয়েছেন।

এদিকে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি শুনেছেন জানিয়ে রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও মামলার ২নং বিবাদী শফিউল আজম জানিয়েছেন, আদালতের সিদ্ধান্ত অনুসারেই আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবো। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, আমরা আমাদের পূর্ববর্তী কমিটির ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এবং কমিটিগুলোর সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতেই ক্লাবগুলোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এতে আমার ব্যক্তিগত ইচ্ছার কোনো প্রতিফলন ঘটাইনি।

অপরদিকে এই মামলার বাদী শাওয়াল উদ্দিন জানিয়েছেন, বিগত ১৯৮৯ প্রতিষ্ঠার পর থেকেই নিয়মনীতি মেনেই আমাদের নবীন সংঘ ক্লাবটি যুব সমাজকে উদ্ভুদ্ধ করে খেলাধুলার মাধ্যমে শারিরিক ও মানসিক বিকাশে যুগোপযোগি বিজ্ঞান সম্মত পন্থা অবলম্বন করে মেধাবী ও প্রতিভাবান খেলোয়ার সৃষ্টির লক্ষ্যে একটি সুস্থ ও সবল জাতি বিনির্মানের লক্ষ্যে শরীর চর্চার প্রতি সাধারণ মানুষকে উদ্ভুদ্ধ করে তোলার লক্ষ্যে খেলাধুলা পরিচালনা করে আসছে।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার অধীনে সরকারি বিধিমোতাবেক এরআগেও আমরা কয়েকবার নিবন্ধনের জন্য ক্রীড়া সংস্থায় আবেদন করেছিলাম কিন্তু তারা রহস্যজনক কারনে আমাদের আবেদনগুলো মঞ্জুর করেনি। তিনি জানান, বর্তমান কমিটির আগের কমিটি, তারও পূর্বেকার কমিটিও একই ধরনের অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে নিজেদের ইচ্ছেমতো একটি ক্লাব বানিয়ে সদস্য বানিয়ে ফেলে। সেসব ক্লাবগুলো কখনো খেলাধূলার আয়োজনও করেনা। নির্বাচন অনুষ্ঠানের পূর্বে এই ধরনের আচরণ করে আসছে বিগত বছরগুলোতে। এবার তার ব্যতিক্রম ঘটায়নি জেলা ক্রীড়া সংস্থা কর্তৃপক্ষ।

জনাব শাওয়াল বলেন, প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব একটি গঠনতন্ত্র থাকে। সেই গঠনতন্ত্রের আলোকেই সবকিছু পরিচালনা করার কথা। কিন্তু আমাদের জেলা ক্রীড়া সংস্থা তার ব্যতিক্রম আচরণ করে আসছে। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের গঠনতন্ত্রে ষ্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে যে, কার্যনির্বাহী সংসদের মেয়াদের একবছর আগে ক্লাবগুলোকে রেজিষ্টেশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানাতে হবে। সেই আইনকে সুষ্পষ্ট লংঘন করে এবারও দুইটি ক্লাবকে রেজিষ্টেশন প্রদান করে রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থা। তাই আমরা বিষয়টি নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছি। মাননীয় আদালত আমাদেরকে আবেদনের প্রেক্ষিতে আগামী ২৫শে অক্টোবর পর্যন্ত রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন অনুষ্ঠানে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন। তারপরের সময়ে আদালত আমাদেরকে যে সিদ্ধান্ত দিবে আমরা সেটাও মেনে নিবো। আমরা চাই রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থা নিয়মের ভেতরে নিজেদের গঠনতন্ত্র অনুসরন করে সামনের দিকে এগিয়ে যাক। কোনো ধরনের অনিয়মের মাধ্যমে নয়।