উখিয়ায় এসএআরপিভি সংস্থায় স্থানীয়দের ছাঁটাই করে বহিরাগতদের নিয়োগ

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এনজিও এসএআরপিভি সংস্থাতে নিউট্রিশন প্রকল্পে স্থানীয়দেরকে ছাটাই।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

উখিয়া প্রতনিধি: উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এনজিও এসএআরপিভি সংস্থাতে নিউট্রিশন প্রকল্পে স্থানীয়দেরকে ছাটাই করে পুণঃ নিয়োগের মাধ্যমে বহিরাগত  আত্মীয়-স্বজন নিয়োগ দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

এ দিকে উক্ত সংস্থার নিয়োগে অনিয়ম ও বৈষম্যের প্রতিকার চেয়ে সংশ্লিষ্ট ক্যাম্প ইন চার্জ (সিআইসি) কে দফায় দফায়  লিখিত অভিযোগ, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কে  স্মারকলিপি দেওয়ার পরও  এখনো সমাধান হয়নি। আগামী ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে ছাঁটাইকৃত স্থানীয়দের পুণঃ নিয়োগ সহ সমস্যার সুরহা না হলে আগামী  ২৬ ডিসেম্বর অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি পালং খালীর উদ্যোগ মানববন্ধন, এনজিও অফিসের সামনে অবস্থান ধর্মঘট সহ বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি লায়ন ইঞ্জিনিয়ার রবিউল হোসেন।

স্থানীয় বেকার শিক্ষিত যুবকরা জানান,এসএআরপিভি এনজিও সংস্থার অবৈধ নিয়োগ বাতিল,ছাটাইকৃত স্থানীয়দের নিউট্রিশন প্রকল্পে পুণঃনিয়োগ এবং এডুকেশন প্রকল্পে চাকুরীরত শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধির দাবিতে বেশ কয়েক মাস ধরে  সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে আসছে।

অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি লায়ন ইঞ্জি.রবিউল হোছাইন বলেন গত এপ্রিলে এসএআরপিভি এনজিও সংস্থার নিউট্রিশন প্রকল্পে সরকারি নির্দেশনা বহির্ভূত ৩৬জনের একটি নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে। এটি সম্পন্ন করতে  স্থানীয় ৯ জনকে চাকুরী থেকে বিনা কারণে ছাটাই করে। অবৈধ নিয়োগে এসআরপিভি কর্তৃপক্ষ তাদের ১৬জন আত্মীয় স্বজনকে নিয়ম বহির্ভূতভাবে নিয়োগ দিয়েছে।

তিনি আরও জানান,এ বিষয়ে আরআরআরসি সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অসংখ্যবার লিখিতভাবে অভিযোগ দেয়ার পরে গত অক্টোবরে কুতুপালং রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্প এবং ২১ নং ও ২২ নং ক্যাগম্পের সিআইসির উপস্থিতিতে পাঁচ পাঁচ বার শুনানি হয়েছে। উক্ত শুনানিতে এসআরপিভি এনজিওর বিরুদ্ধে অভিযোগে সত্যতা পাওয়া গেছে।

অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির সহ সভাপতি জসিম জানান ছাঁটাইকৃত স্থানীয়দের পূণঃ নিয়োগের আশ্বাস দেওয়ার দুইমাস অতিবাহিত হলেও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করেন

উখিয়া প্রেসক্লাবে গতকাল অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ ঘোষিত কর্মসূচির মধ্যে উল্লেখ করেছেন অবিলম্বে ছাটাইকৃত স্থানীয়দের পুণঃনিয়োগ না দিলে আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে ক্যা্ম্পের অভ্যঅন্তরে যে সকল ক্যাাম্পে এসএআরপিভিন সংস্থার নিউট্রিশন প্রকল্পের সেবা সেন্টারে কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়ে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে। পাশাপাশি এডুকেশন প্রকল্পে চাকুরীরত বাংলাদেশী শিক্ষকদের মাসিক বেতন ২০ হাজার টাকা নির্ধারণ করার জোর দাবি জানান। এ ছাড়াও সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কাটাতারের বাহিরে রোহিঙ্গাদের অবাধ বিচরণ বন্ধ করাসহ রোহিঙ্গাদের সকল প্রকার ব্যরবসা বন্ধ করার দাবিও জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি সভাপতি লায়ন ইঞ্জিনিয়ার রবিউল হোসাইন, সহ-সভাপতি জসীম জুমরাত, লুৎফুর রহমান, শহীদুল্লাহ কায়সার, মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, বাপ্পী প্রমুখ।