ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগে অবশেষে যানজটমুক্ত হল সড়ক

এসময় ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক হিরু।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি: রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মরিয়মনগর চৌমুহনী থেকে সোনালী ব্যাংক চত্বর এবং কাটাখালী থেকে রশিদিয়া পাড়া পর্যন্ত সড়ক দুটি দখলের কারণে যানজট লেগে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছিল স্থানীয় বাসিন্দারা। দীর্ঘদিন ধরে এই পরিস্থিতি চলে এলেও যানজট নিরসনে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছিল না সংশ্লিষ্টরা। এবার জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক দুটি যানজট ও দখলমুক্ত করতে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছেন মরিয়মনগর ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক হিরু। তিনি সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে পরামর্শ করে ৮টি বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন এবং উদ্যোগ বাস্তবায়নে সরেজমিনে তিনি গ্রাম পুলিশদের সাথে নিয়ে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে দীর্ঘদিনের দুর্ভোগের এই সড়ক যানজটমুক্ত হয়েছে।

তার নেয়া উদ্যোগগুলোর মধ্যে রয়েছে- এই সড়ক দুটিতে ভাসমান দোকান ও হকাররা যেখানে সেখানে বসে বা ভ্যানগাড়ি দাড় করাতে পারবেন না। তারা মরিয়মগরের নির্ধারিত “বিয়ান বাজারে” ব্যবসায় চালাতে হবে। সড়কের ফুটপাত দখল করে দোকান সম্প্রসারণ ও মালামাল রাখতে পারবেন না। সড়কে গাড়ি পার্কিং করে রাখতে পারবে না, গাড়িগুলো কর্ণফুলী নদীর পাড়ে ঘাটে রাখতে হবে। যত্রতত্র ভবন নির্মাণ করা যাবে না, এক্ষেত্র ইউনিয়ন পরিষদের অনুমোদন নিতে হবে। পানি নিষ্কাশনের ড্রেনে আবর্জনা ফেলা যাবে না। রাস্তা খনন করে ব্যক্তি উদ্যোগে ড্রেন কিংবা পাইপ দিতে হলে ইউনিয়ন পরিষদের অনুমোদন নিতে হবে৷

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) বিকালে পরিষদের পক্ষ থেকে গৃহীত এই পদক্ষেপগুলো ইউনিয়ন পরিষদের নির্ধারিত প্যাডে লিখে তা জনসাধারণের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। সড়কের সোনালী ব্যাংক চত্বরে বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি মো. মাহবুব মিলকী। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক হিরু, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

ওসি মাহবুব মিলকী তাঁর বক্তব্যে পরিষদের পক্ষ থেকে নেয়া এসব পদক্ষেপগুলোকে স্বাগত জানান। মাঠ পর্যায়ে এসব পদক্ষেপ বাস্তবায়নে পুলিশ সর্বাত্মক সহায়তা করবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক হিরু বলেন, মরিয়মনগর ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। এই এলাকার মানুষের চলাচলের প্রধান মাধ্যম হল এই সড়ক দুটি। সড়ক দুটি দখল ও যানজটে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠেছেন। তাই জনস্বার্থে এই আটটি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে পদক্ষেপগুলোর ব্যাপারে সবাইকে অবহিত করা হয়েছে। পরবর্তীতে অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।