আপনার নামে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন করা আছে জানবেন যেভাবে

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা এনআইডি দিয়ে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন হয়েছে তা জেনে রাখা ভালো। কারণ তাতে আপনি বুঝতে পারবেন, আপনার অজান্তে কোনো অসাধু ব্যক্তি আপনার নামে সিম নিয়ে ব্যবহার করছে কি না।

সাবস্ক্রাইবার আইডেনটিটি মডিউল বা সংক্ষেপে সিম কার্ড ব্যবহার করতে হলে আমাদের সেটা নিবন্ধন করতে হয়। যে কেউ তার নিজের ভোটার আইডি কার্ড বা ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পারে। বিটিআরসি (BTRC)-এর ঘোষণা অনুযায়ী, একটি ডকুমেন্টের বিপরীতে সর্বোচ্চ ১৫টি সিম নিবন্ধন করা যায়।

অপ্রয়োজনীয় সিম চাইলে বাতিল করে দেয়া যায়। সে জন্য আপনাকে উক্ত সিমে অপারেটরের কাস্টমার কেয়ারে যেতে হবে। অপারেটরের এজেন্টের সহায়তা নিয়ে সহজেই সিম বাতিল করতে পারবেন। অন্যদিকে যদি সিমগুলো দরকারি হয়ে থাকে, তাহলে আপনার পরিবারের কারো নামে সিমের মালিকানাও পরিবর্তন করতে পারবেন।

আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা এনআইডি দিয়ে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন হয়েছে তা জেনে রাখা ভালো। কারণ তাতে আপনি বুঝতে পারবেন, আপনার অজান্তে কোনো অসাধু ব্যক্তি আপনার নামে সিম নিয়ে ব্যবহার করছে কি না।

সিম নিবন্ধন যাচাই করার উপায়

আপনার বর্তমানে ব্যবহৃত যেকোনো গ্রামীণ, রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক এবং টেলিটক সিমের মাধ্যমে আপনার নামে রেজিস্ট্রেশন হওয়া সিমের পরিমাণ জানতে পারবেন।

সে জন্য আপনাকে *১৬০০১# ডায়াল করতে হবে।

এই নম্বর ডায়াল করার পর ফিরতি মেসেজে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বরের শেষের চারটি সংখ্যা দিতে বলবে। এ পর্যায়ে আপনার এনআইডি কার্ডের শেষের চারটি সংখ্যা সাবমিট করে সেন্ড করুন। ফিরতি মেসেজে আপনার এনআইডি দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা সিমগুলোর নম্বর দেয়া হবে।

এখানে প্রিপেইড বা পোস্টপেইড যেই সিমই হোক না কেন সব নম্বর দেখাবে। তবে নম্বরগুলো সম্পূর্ণ দিবে না। প্রতিটি নম্বরের শুরুর তিন ডিজিট এবং শেষের তিন ডিজিট দেখাবে। ঠিক অনেকটা এ রকম ৮৮০১৫*****১২৩।

এই সেবা নেয়ার জন্য কোনো চার্জ কাটা হবে না, অর্থাৎ আপনি ফ্রিতে এটি করতে পারবেন।