সীতাকুণ্ডে হামলা থেকে স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে স্ত্রী-কন্যাসহ আহত ৪

আহত দোলন কুমার চৌধুরীর জামাতা আহত সজল চৌধুরী।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি:  সীতাকুণ্ডে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে দোলন কুমার চৌধুরী (৫৮) নামে এক ব্যক্তির উপর অতর্কিত হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ সময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে  হামলাকারীর এলোপাতাড়ি পিটুনিতে দোলন কুমারের স্ত্রী  মধুমিতা সেন, কন্যা মৌমিতা চৌধুরী ও জামাতা সজল চৌধুরী গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত তপন কুমার চৌধুরীসহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে মঙ্গলবার রাতে আহত মধুমিতা সেন বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আহত মধুমিতা সেন জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তার স্বামী নিজ বসত ঘরে প্রবেশের সময় অভিযুক্তরা তাকে ঘরে প্রবেশে বাধা প্রদান করেন এবং  নানা ধরনের হুমকি প্রদান করেন। তার স্বামী  তাদের অন্যায়ের প্রতিবাদ জানালে  অভিযুক্তরা ক্ষিপ্ত হয়ে  উঠেন। এ সময় তারা তাদের হাতে থাকা লোহার রড ও লাঠি দিয়ে তার স্বামীকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করেন।

এক পর্যায়ে স্বামীর আত্মচিৎকারে তাকে বাঁচাতে মেয়ে ও মেয়ের জামাতাসহ তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে গেলে অভিযুক্তরা তাদের তিনজনকেও পিটিয়ে আহত করে। তবে ঘটনার কিছুক্ষণ পর  সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে এলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।

আহত মধুমিতা সেন আরো জানান, এ ঘটনার পর থেকে  তিনি ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তারা অভিযুক্তদের হাত থেকে রেহাই পেতে  ঘটনার পর থেকেই বাড়ির বাইরে রয়েছেন।

অন্যদিকে এ বিষয়ে অভিযুক্ত তপন চৌধুরী বলেন, তাদের সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলছে। এসব বিরোধের জের ধরে রাতে দু’পক্ষের মধ্যে  মনমালিন্যের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিপক্ষ তাকে ফাঁসাতে আহতের নাটক সাজিয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছে।

এবিষয়ে সীতাকুণ্ড থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুজন শর্মা বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে বাক-বিতণ্ডার খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে যান।  পরে দুই পক্ষকে বুঝিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন তিনি।  এ ঘটনায়  মধুমিতা সেন বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।