শেষ মুহূর্তে হাটে হাটে গরু বিক্রির ধুম

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: রোববার সারা দেশে পালিত হবে কোরবানির ঈদ। তাই মানুষ শেষ মুহূর্তে প্রস্তুতি নিচ্ছে পশু কোরবানির। অনেকে এরই মধ্যে পশুর হাট থেকে পছন্দের গরু ও ছাগল কিনে নিয়েছেন। তবে ঢাকার ক্রেতাদের বড় অংশ পশু কিনবেন আজ।

আজ শনিবার ঢাকার দুই সিটির ৩টি পশুর হাট ঘুরে দেখা গেছে, হাটে হাটে শেষ মুহূর্তে পশু বিক্রির ধুম পড়েছে। কমলাপুর পশুর হাটে কথা হয় গরু ব্যবসায়ী রাজ্জাক হোসেনের সঙ্গে। কিশোরগঞ্জ থেকে ১৪টি গরু নিয়ে তিনি হাটে এসেছেন। রাজ্জাক হোসেন জানান, গত দুই দিনে ৯টি গরু বিক্রি হয়ে গেছে। আজ শেষ দিন কেনা দামে হলেও বাকি গরু বিক্রি করে দেব।

বগুড়ার গরু ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম আজ সকালে ১৭টি গরু নিয়ে কমলাপুর হাটে এসেছেন। এর মধ্যে ছোট সাইজের একটা গরু ৬৮ হাজার টাকা বিক্রি করেছেন। বেলা শেষ হওয়ার আগেই বাকি গরুও বিক্রি করতে পারবেন প্রত্যাশা জাহাঙ্গীরের।

রাজধানীর শান্তিনগর থেকে কমলাপুরে গরু কিনতে এসেছেন সেলিম আহমেদ। তিনি জানান, মাঝারি সাইজের গরু তাঁর পছন্দ। বাজেট ৮০ থেকে ৮৫ হাজার টাকার মতো। আজকে কোরবানির গরু নিয়েই ঘরে ফিরতে চান তিনি।

শাহজাহানপুর খেলার মাঠে ১০টি গরু নিয়ে এসেছিলেন কুষ্টিয়ার মিরপুর এলাকার শহীদুল ইসলাম। তিনি আট বছর ধরে এই হাটে গরু নিয়ে আসেন। শহীদুল ইসলাম জানালেন, শুক্রবার রাতেই তাঁর ৮টি গরু বিক্রি হয়ে গেছে। দামও পেয়েছেন ভালো। বাকি দুটি গরু আজ বিক্রি করবেন।

শাহজাহানপুর খেলার মাঠ ইজারাদার আব্দুল লতিফ জানালেন, এবার হাটে বেচা-বিক্রি ভালোই জমেছে। শুক্রবার রাতের মধ্যে শাহজাহানপুর হাটে ব্যবসায়ীদের বেশির ভাগ গরু বিক্রি হয়ে গেছে।

এদিকে আফতাবনগর পশুর হাটেও বিক্রি বেশ ভালো হচ্ছে বলে জানালেন সংশ্লিষ্টরা। এই হাটে নওগাঁ থেকে ৫টি গরু নিয়ে এসেছিলেন আতিকুর রহমান। এর মধ্যে ৩টি গরু বিক্রি হয়েছে বলে জানালেন আতিকুর।

এ বছর ঢাকার দুই সিটিতে গাবতলী ও সারুলিয়া এই দুটি স্থায়ী পশুর হাট ছাড়াও অস্থায়ী পশুর হাট বসেছে ১৯টি। এর মধ্যে ডিএনসিসিতে অস্থায়ী হাটের সংখ্যা ৯টি আর ডিএসসিসিতে ১০টি।