শেষ পর্যন্ত লড়ে যাবে ইউক্রেন, স্বাধীনতা দিবসে জেলেনস্কির প্রতিজ্ঞা

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে প্রতিজ্ঞা করে বলেছেন, আমার দেশ রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ‘শেষ পর্যন্ত’ লড়ে যাবে এবং এতে কোনো ছাড় বা আপস করা হবে না।

সোভিয়েত ইউনিয়নের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের ৩১ বছর উদযাপনের সময় রুশ আগ্রাসন মোকাবিলা করছে ইউক্রেন। এমন পরিস্থিতিতে ভাষণ দেওয়ার সময় আবেগাক্রান্ত হয়ে পড়েন জেলেনস্কি। তিনি ইউক্রেনীয়দের বলেন, রাশিয়ার আগ্রাসনের পর ইউক্রেনের ‘পুনর্জন্ম’ হয়েছে এবং মস্কোর কবল থেকে স্বাধীনতার জন্য লড়াই বন্ধ হবে না। খবর রয়টার্স, আল জাজিরার।

বুধবার (২৪ আগস্ট) এক ভিডিও বার্তায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, তোমাদের কেমন সেনাবাহিনী রয়েছে আমরা সে বিষয়ের তোয়াক্কা করি না, আমরা শুধু আমাদের ভূমি নিয়ে চিন্তিত। যার জন্য শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাব।

এ দিন অবশ্য ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার ছয় মাস পূর্ণ হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা ছয় মাস ধরে শক্তিশালী অবস্থান ধরে রেখেছি। এটি কঠিন কিন্তু আমরা লড়াই অব্যাহত রেখেছি আমাদের ভবিষ্যতের জন্য।

এদিকে রাশিয়ার সঙ্গে কোনো ধরনের সমঝোতায় না যাওয়ার কথা জানান ৪৪ বছর বয়সি জেলেনস্কি। তিনি বলেন, আমরা সন্ত্রাসীদের সঙ্গে কোনো ধরনের বোঝাপড়ার চেষ্টা করব না।

তিনি বলেন, বিশ্বে ২৪ ফেব্রুয়ারির ভোর ৪টায় নতুন একটি জাতির আবির্ভাব ঘটে। এটি জন্ম নয়, পুনর্জন্ম। যে জাতি কান্না করেনি, চিৎকার করেনি বা ভয় পায়নি। পালিয়েও যায়নি। হাল ছেড়ে দেয়নি এবং ভুলেও যায়নি।

তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, দোনবাসের শিল্পাঞ্চলে হারানো ভূমি ও ক্রিমিয়া পুনরায় মুক্ত করা হবে। এ ক্রিমিয়া রাশিয়া দখলে নিয়েছিল ২০১৪ সালে।

‘যুদ্ধের শেষে আমাদের জন্য কী অপেক্ষা করছে? স্বাভাবিকভাবে আমরা বলতে অভ্যস্ত— শান্তি। কিন্তু এখন আমরা বলছি, বিজয়’, যোগ করেন জেলেনস্কি।

ইউক্রেনে আগ্রাসন শুরুর পর থেকে লুহানস্ক, মারিওপোল, খেরসনসহ বেশ কিছু অঞ্চল দখল করে নেয় রাশিয়া। বর্তমানে দোনেৎস্ক অঞ্চল দখলে নেওয়ার জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে মস্কো। তবে এ পরিস্থিতিতে ক্রিমিয়াসহ রুশ নিয়ন্ত্রিত এলাকায় বাড়ছে হামলার মাত্রাও।