শিক্ষামন্ত্রীর ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করা সেই ডিসি বদলি

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: চাঁদপুরের জেলা প্রশাসকসহ (ডিসি) চার জেলায় ডিসি পরিবর্তন করা হয়েছে। এর মধ্যে চাঁদপুরের ডিসি অঞ্জনা খান মজলিসকে নেত্রকোনার ডিসি হিসেবে বদলি করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

চাঁদপুরে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির ভাইসহ আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা–কর্মীর জমি দখলের বিরুদ্ধে অবস্থানের জন্য আলোচিত ছিলেন ডিসি অঞ্জনা খান মজলিস। দীপু মনির ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জাওয়াদুর রহিম ওয়াদুদ ওরফে টিপুসহ বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মী ভুয়া দলিলের মাধ্যমে ৪৮ একরের বেশি জমির দখল নেন। জেলার হাইমচরের নীলকমল ইউনিয়নের বাহেরচরে আছে এসব জমি। তাঁরা পরে সেখানে মাছের ঘের, গবাদিপশুর খামার ও সবজিবাগান গড়ে তোলেন। ওই এলাকার নাম বদলে নিজের নামে ‘টিপুনগর’ নামকরণ করেন। বিষয়টি তুমুল সমালোচনার সৃষ্টি করে। এ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ দখলের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৮ এপ্রিল চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার টিপুনগরের খাসজমি উদ্ধারে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আদালতে মামলা করা হয়। মামলায় জাওয়াদুর রহিম ওয়াদুদসহ ২৫ জনকে আসামি করা হয়।

চাঁদপুরের সরকারি কৌঁসুলি মো. আবদুর রহমান এ বিষয়ে তখন সংবাদমাধ্যম কে বলেছিলেন, আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারির নির্দেশ দিয়েছেন। ৩১ মে মামলার শুনানির তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এর আগে চাঁদপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য ভূমি অধিগ্রহণের নামে প্রভাবশালী একটি মহল সরকারের কাছ থেকে ৩৫৯ কোটি টাকার বেশি কারসাজি করে। জমির অস্বাভাবিক মূল্য দেখে জেলা প্রশাসন ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ১৩ সদস্যের কমিটি করে দেয়। সেই কমিটির প্রতিবেদনে কারসাজির ঘটনা ধরা পড়ে। জেলা প্রশাসক গত ১৬ নভেম্বর এ অনিয়মের বিষয়টি ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিবকে লিখিতভাবে জানান। এ কারসাজির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির ঘনিষ্ঠ বলে এলাকায় পরিচিত। এ নিয়ে সংবাদমাধ্যম কে  গত ২৭ জানুয়ারি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

অঞ্জনা খান মজলিস গত বছরের ১ মার্চ চাঁদপুরের ডিসি হিসেবে যোগ দেন। এর ১৪ মাসের মাথায় তাঁকে সেখান থেকে বদলি করা হলো। আজ সরকারি এক প্রজ্ঞাপনে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর একান্ত সচিব কামরুল হাসানকে চাঁদপুরের ডিসি করা হয়েছে। এ ছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সাহেলা আক্তারকে শেরপুরের ডিসি, কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (উপসচিব) শ্রাবন্তী রায়কে জামালপুরের ডিসি করা হয়েছে।