শাশুড়িকে ছয় টুকরো করে হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ছবি:সিপ্লাসটিভি.নিউজ
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

রামু প্রতিনিধি: রামুতে শ্বাশুড়িকে হত্যার পর ছয় টুকরো করে মাটিচাপা দেওয়ার ঘটনায় আটক পুত্রবধূ রাশেদা বেগমসহ জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী।

শুক্রবার, ২২ জুলাই উপজেলার দক্ষিন মিঠাছড়ি ইউনিয়নের উমখালী হাজির পাড়া এলাকায় নিহত মমতাজ বেগমের বাড়ির পাশে রাজারকুল-চেইন্দা সড়কে এ মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বলেন, একজন বয়োবৃদ্ধা শাশুড়িকে পুত্রবধূর নেতৃত্বে হত্যার পর মৃতদেহ কেটে ৬ টুকরো করে মাটিচাপা দেয়ার ঘটনা সকল বিবেকবান মানুষকে হতবাক করেছে। হত্যা ও হত্যা পরবর্তী মৃতদেহ কাটা এবং গর্ত করে মাটিচাপা দেয়ার সকল প্রক্রিয়া দেখে সবার ধারনা হয়েছে- এ ঘটনা একজনের পক্ষে সম্ভব না। নিশ্চয় কোন একটি সংঘবদ্ধ চক্র এ ঘটনায় জড়িত রয়েছে। আটক রাশেদা বেগমকে জিজ্ঞাষাবাদ করা হলে খুনের রহস্য উন্মোচন হবে।

এছাড়া পুলিশ প্রশাসনকে এ ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটনে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। বক্তারা আরো বলেন- এলাকার প্রতিটি মানুষ এ ঘটনায় দোষী সকল খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাবেন। প্রয়োজনে আরো বৃহত্তর কর্মসূচিও ঘোষনা করা হবে।

মানববন্ধনে রামু উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন, মিঠাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খোদেশতা বেগম রীনা, রামু প্রেসক্লাবের সভাপতি নীতিশ বড়ুয়া, মিঠাছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি জহুর আলম, সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম রানা, ইউপি সদস্য আমির হামজা ও আজিজুল হক দুদু মিয়া, আওয়ামীলীগ নেতা আবদুল হামিদ।

এতে নিহতের পরিবারের সদস্য সিরাজুল হকের সভাপতিত্বে ও হাজীরপাড়া জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সংবাদকর্মী নুর মোহাম্মদের সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন- রামু রাবার বাগান শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নুরুল হাসান, সূর্যের হাসি যুব সংঘ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নুরুল হক বুলবুল, রামু প্রেস ক্লাবের প্রচার সম্পাদক হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, সোনার বাংলা ক্রীড়া সংঘের সাবেক সভাপতি শহীদ উল্লাহ শহীদ, মো. শফি, আমান উল্লাহ, নুরুল আবছার, মিজানুর রহমান, ছোটন ধর, ছাবের আহমদ, আজিজুল হক, আবু ছৈয়দ, মমতাজ আহমদ, মোক্তার আহমদ, মোহাম্মদ ইব্রাহীম, আবদুল আজিজ, মৌলানা মনির উল্লাহ, ছৈয়দ করিম, মোহাম্মদ আলী প্রমূখ।কোরআন তেলাওয়াত করেন- হাফেজ ইমজামামুল হাসান।

উল্লেখ্য গত ১৭ জুলাই সোমবার বিকেলে রামু থানা পুলিশ কেটে ৬ টুকরো করে মাটিচাপা দেয়া বৃদ্ধা মমতাজ বেগমের মৃতদেহ উদ্ধার এবং এ ঘটনার দায় স্বীকার করে স্বীকারোক্তি দেয়া পুত্রবধু রাশেদা বেগমকে আটক করে।

ময়নাতদন্ত শেষে পরদিন (১৮ জুলাই) হাজিরপাড়া কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। ১৯ জুলাই এ ঘটনায় মামলা ৪ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন- মমতাজ বেগমের ছেলে আলমগীর।

এদিকে বৃহষ্পতিবার, ২১ জুলাই মামলার ১নং আসামী পুত্রবধূ রাশেদা বেগমের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিজ্ঞ বিচারিক হাকিম।