লোহাগাড়ায় বৃষ্টির জন্য বিশেষ প্রার্থনা, মুহুর্তেই নামলো বৃষ্টি

বৃষ্টি নামার পরে দোয়া, মোনাজাত শেষে এভাবেই আবেগে ইমামকে জড়িয়ে ধরেন চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দীন
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বর্ষা মৌসুমের শ্রাবণ শেষে ভাদ্র মাসে এসেও বৃষ্টির দেখা নেই। অনাবৃষ্টি তথা দেশব্যাপী টানা খরার তীব্রতায় আমন ধানের আবাদ নিয়ে বিপাকে কৃষকরা। সেঁচ ব্যবহার করে পানি দিতে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত মজুরী। এ অবস্থায় বৃষ্টির জন্য হাহাকার পড়েছে চারিদিকে। অন্যদিকে চলমান লোডশেডিং ও কয়েকদিনের তীব্র দাবদাহে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে জনজীবন।

এ পরিস্থিতিতে আধুনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নাজিম উদ্দিনের উদ্যোগে এবং আধুনগর ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ‘সালাতুল ইসতিসকা’ তথা বৃষ্টির প্রার্থনার বিশেষ নামাজ ও দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) সকালে পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ী উপজেলার আধুনগর ইসলামিয়া কামিল মাদরাসা মাঠ প্রাঙ্গণে এই বিশেষ নামাজ আদায় করেন আলেম, উলামা ও স্থানীয় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

এসময় উপস্থিত আধুনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নাজিম উদ্দিন তার বক্তব্যে বলেন, “অতিবৃষ্টিও গজব, অনাবৃষ্টিও গজব। আমরা গুনাহগার বান্দা সবসময় আল্লাহর কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। আমাদের চলার পথে, ব্যবসায়িক কাজকর্মে, লেনদেনে আমরা যদি নিজের জানতে বা অজান্তে কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকি তাহলে পরস্পর পরস্পরের থেকে ক্ষমা চেয়ে নেওয়া উচিত। আমাদের চলার পথে যদি আল্লাহর অবাধ্য বা অন্যায় করে থাকি তাহলে তার জন্য আল্লাহর কাছে মাফ চাই। বিশেষ করে শিরক এবং বিদআত থেকে আমরা বেঁচে থাকবো। দুনিয়ার শান্তি এবং আখিরাতের মুক্তি তথা আজকে যেন আল্লাহ আমাদের নামাজকে কবুল করেন সেই প্রার্থনা করছি।”

নামাজ শেষে মোনাজাত শেষ হতে না হতেই আধুনগর ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসা মাঠে নেমে আসে স্বস্থির বৃষ্টি। দৃশ্যমান দোয়া কবুলের এই অলৌকিক নজীর দেখে মুহুর্তেই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন উপস্থিত ধর্মপ্রাণ জনতা। অনেকে খুশিতে কান্নায় ফেঁটে পড়েন, কৃতকর্মের জন্য অনুশোচনা করেন এবং তাৎক্ষণিক বৃষ্টির জন্য আল্লাহর কাছে শোকরিয়া জ্ঞাপন করেন।

আধুনগর ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা উসমান গণি এ বিশেষ নামাজে ইমামতি ও দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন।