রামুতে প্রতিষ্ঠানের নামে জায়গা দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভোক্তভোগী ওই হিন্দু পরিবার
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

রামু প্রতিনিধি: কক্সবাজারের রামুর রাংকুট এলাকায় একটি প্রতিষ্ঠানের নাম অসহায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ৩০ বছরের নিজ দখলীয় খতিয়ানী জায়গা যার বিএস খতিয়ান নং ১৫৯৪ যার আরএস। খতিয়ানের ১০৬২, এমআর দাগ ১১৮৯, ৩২৬৩, জবর দখল করে স্থাপনা নির্মাণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভোক্তভোগী ওই হিন্দু পরিবার।

রবিবার (২১ আগষ্ট) দূপুরে শহরের একটি অভিযাত হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন প্রদীপ শর্মা। তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রদীপ শর্মার পূর্ব পুরুষ থেকে ওয়ারিশ মুলে পাওয়া ওই জায়গাটি বিগত ৩০ বছর ধরে তারা ভোগ দখলে আসছেন। এতে তাদের হালনাগাদ খাজনাসহ যাবতীয় ভূমিকরও পরিশোধ করা আছে। সম্প্রতি ওই এলাকায় জায়গার দাম বাড়ার কারনে এলাকার এক শ্রেণীর প্রভাবশালীর কু-দৃষ্টি উক্ত অসহায় হিন্দুর জায়গার প্রতি। তার ফলশ্রুতিতে হঠাৎ করে অনেকটা গায়ের জোরে ও বেআইনিভাবে রামু রাংকুট বনাশ্রমের অধ্যক্ষ জ্যোতি সেন ভান্তের নেতৃত্বে তার অনুসারীরা উক্ত জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ শুরু করে। এ বিষয়ে যতাযত প্রতিকার পেতে  স্থানীয় চেয়ারম্যান মফিজুর রহমানকে অবহিত করলেও এর কোন সুরাহা হয়নি বলে দাবী করেন ওই পরিবার। যার কারণে এলাকার সচেতন মহলের কাছের ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আগত স্থানীয়রা জানিয়েছেন ওই কতিপয় কু-চক্রিমহলের ইন্দনে ওই জ্যোতি সেন ভান্তের নেতৃত্বে একদল অপরাধী রাতের আধারে ওই হিন্দুদের জায়গাটি জবর দখল করে, স্থাপনা নির্মান শুরু করে। এলাকাবাসীর দাবি এভাবে যদি একের পর এক সাধারণ অসহায় মানুষের জায়গা জবর দখল হয়, তাহলে এলাকায় আইন শৃংখলার অবনতি হবে। এই ব্যপারে তারা কক্সবাজার জেলা প্রশাসকসহ পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামানা করেন। এক পর্যায়ে ভোক্তভোগী প্রদীপ শর্মা লিখিত বক্তব্য পাঠকালে কান্নায় ভেঙ্গে পাড়েন। তিনি দাবী করেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার প্রতি সদয় হয়ে তার যুগ যুগ ধরে দখলে থাকা খতিয়ানী জায়গা ফেরত পেতে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিবেন। পাশাপাশি তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজিপির হস্তক্ষেপ কামানা করেন