মুশফিক-লিটনের অর্ধশতকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: সকালের ৪০ মিনিটের ঝড়ের পর ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন মুশফিকুর রহিম এবং লিটন দাস। এই দুইজনের ব্যাটেই শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। ষষ্ঠ উইকেটে তাদের শতরানের জুটিতে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে টাইগাররা। মুশফিক এবং লিটন দুজনই ধীরস্থির ব্যাটিং করে ব্যক্তিগত অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন। লিটন ৯৬ বলে ৮ চারে পঞ্চাশের ঘর পার করেছেন আর মুশফিক ১১২ বলে করেছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৬তম ফিফটি।

চট্টগ্রাম টেস্ট নিষ্প্রাণ ড্র করার পর ঢাকায় ফিরে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ছিল অধিনায়ক মুমিনুল হকের দলের। সোমবার সকালে মিরপুরের টস ভাগ্যটাও কথা বলে স্বাগতিকদের হয়ে। আইসিসির চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলের উপস্থিতিতে যেখানে নিজেদেরকে মেলে ধরার তাড়না, অথচ সেখানে কি হতশ্রী ব্যাটিংই না করল বাংলাদেশ দল। দুই লঙ্কান পেসারের বোলিং তোপে মাত্র ২৪ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসেছিল তারা।

এই ধসের শুরুটা হয় তরুণ ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়কে দিয়ে। ম্যাচের দ্বিতীয় বলে রানের খাতা না খুলেই ফেরেন এই ডানহাতি। পরের ওভারেই সাজঘরের পথ ধরেন আরেক ওপেনার তামিম ইকবালও। তিনিও খুলতে পারেননি রানের খাতা। আসিথা ফার্নান্দোর বলে দারুণ এক ক্যাচ নিয়ে তাকে ফেরান প্রাভিন জয়াবিক্রমা।

দুই ব্যাটসম্যান শূন্য রানে আউট হওয়ায় লজ্জার রেকর্ডের সঙ্গী হয় বাংলাদেশ। ২০১৪ সালের পর আবার টেস্টে দুই ওপেনার ফেরেন কোনো রান না করেই। বাংলাদেশ দল এমন ঘটনার সাক্ষী হলো তৃতীয়বার। তিনবারই নাম আছে তামিমের। আজকের আগে সবশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ০ রানে আউট হয়েছিলেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার। তার আগের ঘটনাটি ছিল ২০১০ সালে।

দুই ওপেনারের ব্যর্থতায় যেখানে দায়িত্ব নিয়ে খেলার উচিৎ ছিল অধিনায়ক মুমিনুলের, সেখানে আবার ব্যর্থ তিনি। ফিরলেন ৯ রানে। টানা ৬ ইনিংসে ব্যাট হাতে দুই অঙ্কের ঘর ছুঁতে ব্যর্থ তিনি।

এরপর রাজিথার টানা দুই বলে ফিরেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও সাকিব আল হাসান। বড় শট খেলতে গিয়ে বলের লাইন মিস করে বোল্ড হয়েছেন শান্ত, আর লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে রিভিউ নিয়েই বাঁচতে পারেননি সাকিব।

প্রথম দিনের চায়ের বিরতির পূর্বে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১৫৩ রান। মুশফিক ৬২ আর লিটন ৭২ রানে অপরাজিত আছেন।