মহাসড়কে অবৈধ যান চলাচলের নিষিদ্ধে ধর্মঘট চলছে

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: মহাসড়কে সব ধরনের অবৈধ থ্রি–হুইলার (নছিমন, করিমন, ভটভটি, মাহিন্দ্র, ব্যাটারিচালিত রিকশা, ইজিবাইক ও ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল) চলাচল বন্ধের দাবিতে রাজবাড়ীতে চলছে ধর্মঘট।

শুক্রবার(১১ নভেম্বর) সকাল ৬ টা থেকে শুরু হওয়া ধর্মঘট চলবে শনিবার(১২ নভেম্বর) রাত ৮ টা পর্যন্ত। ধর্মঘটের বিষয়টি গনমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন রাজবাড়ী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুরাদ হাসন।

৩৮ ঘন্টার পরিবহন ধর্মঘটের কারণে পরিবহন ও মিনিবাস বন্ধ থাকায় ঢাকাগামী যাত্রীসহ আশেপাশের জেলায় যাতায়াতকৃত যাত্রীদের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

রাজবাড়ী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুরাদ হাসান বলেন, অবৈধভাবে মহাসড়কে ইঞ্জিন চালিত তিন চাক্কার যানবাহন ও ব্যাটরি চালিত যানবাহনের দৌরাত্ম দিন দিন বেড়ে চলেছে। এতে মহাসড়কে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরণের অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্ঘটনা ঘটছে।মহাসড়কে এই অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধ করার জন্য আমরা ইতিমধ্যেই ফরিদপুর মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাথে সমন্বয় করে আমাদের বিভিন্ন দাবিদাওয়া সম্বলিত একটি চিঠি ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার বরাবর পাঠিয়েছিলাম।

কিন্তু এ বিষয়ে প্রশাসন কোন পদক্ষেপ নেননি। তাই আমাদের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আজ শুক্রবার(১১ নভেম্বর) থেকে শনিবার(১২ নভেম্বর) রাত ৮ টা পর্যন্ত ৩৮ ঘন্টার পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে।

বিএনপির বিভাগীয় গণ সমাবেশে নেতাকর্মীদের যাতায়াত বন্ধ করার জন্য এ ধর্মঘট কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, না। এই ধর্মঘট আমাদের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী হয়েছে। সুতরাং বিএনপির ফরিদপুর গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে আমাদের এই ধর্মঘট না।

সরেজমিনে,রাজবাড়ীর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, মুরগির ফার্ম এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, রাজবাড়ী- ফরিদপুর, রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া,রাজবাড়ী-দৌলতদিয়া,রাজবাড়ী-ঢাকা সহ সকল অভ্যন্তরীণ বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।শত শত বাস টার্মিনালে সারিবদ্ধ ভাবে পার্কিং করে রাখা হয়েছে।পরিবহন শ্রমিকেরা বাসের মধ্যে বসে অলস সময় পার করছে। এছাড়া অভ্যন্তীণ রুটের সাধারণ যাত্রীরা টার্মিনাল ও মুরগির ফার্ম এলাকায় এসে ফিরে যাচ্ছে।পরিবহন চলাচল বন্ধ থাকায় তাদের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

রাজবাড়ী-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বিএনপির কেন্দীয় নেতা নাসিরুল হক সাবু গনমাধ্যমকে বলেন,এই অবৈধ সরকার ষড়যন্ত্র করে সমাবেশের আগে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। কিন্তু কোন ধর্মঘট আমাদের এই সমাবেশকে বাঞ্চাল করতে পারবে না। আমরা জানতাম এই অবৈধ সরকার সমাবেশের আগে বাস বন্ধ করে দিবে তাই আমরা দুই/তিন আগে থেকেই নেতাকর্মীদের সমাবেশ স্থলে পাঠিয়ে দিয়েছিলাম।