মহাসড়কে অবরোধের ঘটনায় জঙ্গল সলিমপুর বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে পুলিশের ৬ মামলা

মোট ৬টি মামলায় আসামি করা হয়েছে এজাহারনামীয় ৪৫ জন ও অজ্ঞাত ১৫০ জন
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ড উপজেলার ১০নং ছলিমপুর ইউনিয়নের জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগর এলাকার অবৈধ বসবাসকারিদের বসতঘর ও দোকান উচ্ছেদ ও বিদ্যুৎ সংযোগ-পানি বিচ্ছিন্ন করার প্রতিবাদে ঐসব এলাকার কয়েক হাজার বাসিন্দা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে মঙ্গলবার।

এ সময় বিক্ষুদ্ধরা পুলিশ বক্স ভাংচুর,পুলিশের কাজে বাঁধা,ককটেল বিস্ফোরণ, বেআইনি জনতাবদ্ধে দাঙ্গার উদ্দেশ্যে লাঠি-সোটা ও দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে যাত্রী ও পন্যবাহী গাড়ি ভাংচুর পূর্বক অন্তঘার্তমূলক কাজ করার অপরাধ ও মহাসড়ক অবরোধ করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অপরাধে মডেল থানা পুলিশ জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগর এলাকার অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক ভাবে ৬টি মামলা দায়ের করেছেন। উপজেলার ফৌজদারহাট  ট্রাফিক বক্সের সামনে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক,বায়োজিদ-ফৌজদারহাট ও বন্দর টোল রোড সংযোগ সড়কের চৌরাস্তায় অবরোধ করার ঘটনার তিনটি মামলা বাদী সীতাকুণ্ড মডেল থানার উপপরিদর্শক (এস.আই) মোঃ হাবিবুর রহমান ও সলিমপুর জঙ্গল সলিমপুর বায়োজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোড ৪নং ব্রীজের পশ্চিম পাশে সড়কের উপর অবরোধ করার ঘটনায় তিনটি মামলার বাদী সীতাকুণ্ড মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) পারসিত চাকমা। মোট ৬টি মামলায় আসামি করা হয়েছে এজাহারনামীয় ৪৫ জন ও অজ্ঞাত ১৫০জন। সর্বমোট ১৯৫ জন।

তবে পুলিশ এখনো অভিযুক্ত কোন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন,“পুলিশ বক্স ভাংচুর,পুলিশের কাজে বাঁধা,ককটেল বিস্ফোরণ, বেআইনি জনতাবদ্ধে দাঙ্গার উদ্দেশ্যে লাঠি-সোটা ও দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে যাত্রী ও পন্যবাহী গাড়ি ভাংচুর পূর্বক অন্তঘার্তমূলক কাজ করার অপরাধ ও মহাসড়ক অবরোধ করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অপরাধে জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগর এলাকার অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক ভাবে ৬টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলায় এজাহানামীয় ৪৫ জন ও অজ্ঞাত ১৪০ থেকে ১৫০ জনকে আসামী করে মামলা হয়েছে। আমরা অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।”