ভোটের নামে জালিয়াতির উৎসব দুই উপজেলায়: বিএনপি

CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সোমবার দুই উপজেলায় চলমান ভোট নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ অভিযোগ করেন ।

তিনি বলেন, “মহেশপুর ও সাতকানিয়াতে সকাল থেকে ভোট শুরু হলেও সেখানে ভোটাদের সেখানে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। মহেশপুরের প্রত্যেকটি কেন্দ্র থেকে বিএনপি প্রার্থীর এজেন্টদেরকে মারধর করে বের করে দেওয়া হয়েছে এবং রাস্তার মোড়ে মোড়ে লাঠি-সোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে আওয়ামী ক্যাডাররা। একই অবস্থা সাতকানিয়াতেও।

“এই দুই উপজেলায় আওয়ামী সন্ত্রাসীদের সাথে পাল্লা দিয়ে পুলিশও ভোটারদের বের করে দিচ্ছে। দুই উপজেলায় ভোটের নামে ভোট জালিয়াতির উৎসব শুরু হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনকে এই বিষয়ে অবহিত করলে তারা ‘দেখছি বলে’ নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে।”

ভোটার তালিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে রিজভী বলেন, ‘‘আজকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ও সংবাদপত্রে আপনারা দেখেছেন যে, ভোটার তালিকাতে জীবিত মানুষকে মৃত দেখিয়েছে। বিগত নির্বাচনগুলোতে যে সমস্ত ভোটার জাতীয় নির্বাচন ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন কিন্তু ভোটার তালিকায় এখন তাদের মৃত দেখানো হয়েছে। এই হচ্ছে হুদা কমিশনের বৈশিষ্ট ও চালচিত্র।”

তিনি বলেন, “এই যাদুকর প্রধান নির্বাচন কমিশনসহ কমিশনারদের অধীনে নির্বাচনে প্রকৃত ভোটারদের ভোট দেয়ার অধিকার নেই। যে সরকার দেশ, মাটি, পানি, গ্যাস বিক্রি করে; যারা দেশের সার্বভৌমত্বকে অন্যের হাতে তুলে দেয় তারা কখনই সুষ্ঠু নির্বাচন দেবে না।

“যারা পর দেশের কাছে দেশের সার্বভৌমত্বকে বিকিয়ে দিয়ে দালালির পারিশ্রমিক হিসেবে ক্ষমতায় টিকে থাকার গ্যারান্টি পেয়েছে তাদের অধীনে নির্বাচন ভোটার শূন্যই হবে- এটাই স্বাভাবিক।”

নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মীর সরফত আলী সপু, আবু নাসের ‍মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, আমিনুল ইসলাম, কাজী রফিক ও আবদুল খালেক উপস্থিত ছিলেন।