ভারতে নবীকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: বিশ্ব মুসলিমের নিন্দা ও প্রতিবাদ

এক নজরে এ ঘটনার বর্তমান পরিস্থিতি...

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: হজরত মুহাম্মদ (স.)-কে নিয়ে বিজেপি মুখপাত্র নূপূর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালের বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে কূটনৈতিক ক্ষোভ অব্যাহত আছে, গত এক সপ্তাহ ধরেই ভারতীয় মুসলিমদের তোপের মুখে বিজেপি। ইতোমধ্যে ১৫টি দেশ বিবৃতি দিয়ে নিন্দা জানিয়েছে।

যদিও ভারতের পক্ষ থেকে এই বিষয়টি নিয়ে বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, নূপূর শর্মার বক্তব্যের সঙ্গে ভারত সরকার একমত নয়।

এক নজরে এ ঘটনার বর্তমান পরিস্থিতি:

১. ইরান, ইরাক, কুয়েত, কাতার, সৌদি আরব, ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইরান, জর্ডান, আফগানিস্তান, বাহরাইন, মালদ্বীপ, লিবিয়া এবং ইন্দোনেশিয়া সহ অন্তত ১৫টি দেশ বিবৃতি দিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানিয়েছে।
২. দেশগুলো নিন্দা জানিয়ে সরকারকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে।
৩. ভারতের বিরোধী দলগুলো বিজেপির দুই নেতার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে, দলটিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের ভাবমূর্তি নষ্টের জন্য দায়ি করেছে।
৪. ভারতের পক্ষ থেকে এই বিষয়টি নিয়ে বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, নূপূর শর্মার বক্তব্যের সঙ্গে ভারত সরকার একমত নয়। রোববার কাতারে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন, যে বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে, তা ভারত সরকারের অবস্থান নয়। সেই মন্তব্য ভারত সরকারের মতাদর্শ নয়। সমাজের কোনও একটি অংশের মনোভাব সেটা।
৫. বিজেপি বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য মুখপাত্র নূপুর শর্মাকে বরখাস্ত করেছে এবং নবীন জিন্দালকে বহিষ্কার করেছে। দলটি রোববার একটি বিবৃতি জারি করে বলেছে এটি ‘কোনো সম্প্রদায় বা ধর্মকে অবমাননা করে’ এমন মতাদর্শের বিরুদ্ধে দলটি, এবং ‘এ ধরনের কোনো মানুষ বা দর্শনকে উৎসাহ দেয় না’ বিজেপি।
৬. অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি) এই বিতর্কিত মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে এবং ভারতে সংখ্যালঘুদের অধিকার সুরক্ষা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।
৭.  এ মন্তব্যের কঠোর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাতে রোববার কাতার, ইরান এবং কুয়েত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে। ভারতীয় দূতাবাসগুলো পরে বিবৃতি জারি করে বলে, এই ‘আপত্তিকর টুইটগুলি’ ‘কোনোভাবেই ভারত সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত করে না’।
৮. বিভিন্ন দেশে ভারতীয় পণ্য বয়কটের আহ্বান জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া ট্রেন্ড শুরু হয়েছে এই মন্তব্যের জেরে।
৯. বিজেপির দলীয় মুখপাত্র নুপূর শর্মা গত ২৬ মে একটি টিভি চ্যানেলে মহানবী (সা.)-কে নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য করেন। পরবর্তীতে দলের দিল্লি শাখার মিডিয়া ইউনিটের প্রধান নিভিন জিন্দাল টুইটারে এ সংক্রান্ত একটি পোস্ট দেন, পরে তিনি পোস্টটি মুছে দেন।
১০. নূপুর শর্মার দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে একটি মামলা দায়ের করেছে দিল্লি পুলিশ। মৃত্যুর হুমকি পাচ্ছেন এমন অভিযোগ করেছেন নূপুর শর্মা। এর আগে তিনি টুইটারে একটি ক্ষমা চেয়ে একটি পোস্ট করে বলেন, কারও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা তার উদ্দেশ্য ছিল না।

উল্লেখ্য, দুজনের মন্তব্যের জেরে গত এক সপ্তাহ ধরেই ভারতীয় মুসলিমদের তোপের মুখে বিজেপি। ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিমরা বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করে। কিন্তু তা নিয়ে দলটি তেমন প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। সর্বশেষ মহানবীকে অবমাননার ঘটনাটি আরব বাণিজ্য সহযোগীদের নজরে পড়তেই বাড়তে থাকে অসন্তোষ। চাপের মুখে ২৪ ঘণ্টার মাথায় বিজেপি শাস্তিস্বরূপ বিতর্কিত দুই সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় বিজেপি।