বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারে কারও বিরুদ্ধে কাজ করছে না রাশিয়া

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: রাশিয়া জ্বালানি বাজারে কারও বিরুদ্ধে কাজ করছে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বিশ্বের শীর্ষ তেল উৎপাদনকারী দেশ ও তাদের সহযোগীদের জোট ওপেক প্লাসের তেল উৎপাদন হ্রাসের সিদ্ধান্তে ওয়াশিংটনের সমালোচনার এক সপ্তাহ পর মঙ্গলবার পুতিন ওই মন্তব্য করেছেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ানের সাথে বৈঠকে পুতিন বলেছেন, জ্বালানি বাজারে স্থিতিশীলতা তৈরি এবং জ্বালানির সরবরাহ ও ভারসাম্যপূর্ণ ব্যবহার নিশ্চিত করাই রাশিয়ার লক্ষ্য।

সেন্ট পিটার্সবার্গে বৈঠকে পুতিন আমিরাতের প্রেসিডেন্টকে বলেন, ‘আমরা ওপেক প্লাসের কাঠামোর মধ্যে থেকেই সক্রিয়ভাবে কাজ করছি। আমি আপনার অবস্থান জানি। আমাদের কর্মকাণ্ড, আমাদের সিদ্ধান্ত কারও বিরুদ্ধে নয়। আমরা এমনভাবে এগিয়ে যাচ্ছি না এবং এমন কিছুই করব না যাতে কারও জন্য সমস্যা তৈরি হয়।’

রাশিয়ার এই প্রেসিডেন্ট বলেন, বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারে স্থিতিশীলতা তৈরিই আমাদের নেওয়া পদক্ষেপের লক্ষ্য; যাতে জ্বালানি সম্পদের ভোক্তা এবং উৎপাদনের সাথে জড়িতদের পাশাপাশি বিশ্ববাজারের সরবরাহকারীরা শান্ত, স্থিতিশীল এবং আত্মবিশ্বাসী বোধ করে। এছাড়া সরবরাহ ও চাহিদার ভারসাম্য যেন নিশ্চিত হয় সেটিও আমাদের লক্ষ্য।

ওপেক প্লাস জ্বালানির ‘অদূরদর্শী’ উৎপাদন কমিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় মূল্য নির্ধারণে যাতে এই জোটের নিয়ন্ত্রণ না থাকে, সেজন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার প্রশাসন ও কংগ্রেসকে যুক্তরাষ্ট্রের জ্বালানির উৎপাদন বাড়ানোর উপায় খোঁজার আহ্বান জানিয়েছেন।

ওপেক প্লাসের জ্বালানির উৎপাদন কমিয়ে মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্তে ব্যাপক চটেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ওপেক প্লাসের ওই সিদ্ধান্তের কারণে মধ্যপ্রাচ্যে জ্বালানির উৎপাদনকারী অন্যতম দুই দেশ সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাথে সম্পর্কে ফাঁটল দেখা দিয়েছে ওয়াশিংটনের।

কিন্তু রোববার ওপেক প্লাসের জ্বালানির উৎপাদন হ্রাসের সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছে ক্রেমলিন। একই সঙ্গে এর মাধ্যমে বৈশ্বিক জ্বালানি বাজারে যুক্তরাষ্ট্র যে অস্থিতিশীলতা তৈরি করেছে, তা ওপেক প্লাস সফলভাবে মোকাবিলায় ব্যবস্থা নিয়েছে বলেও প্রশংসা করেছে মস্কো।