বেসরকারি খাতে যাচ্ছে আরও সাত পাটকল

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: এর আগে প্রথম দফায়, বাংলাদেশ জুট মিলস কর্পোরেশন (বিজেএমসি) দরপত্রের মাধমে চারটি পাটকল বেসরকারি খাতে ছেড়ে দিয়েছে।

ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা জোনে অবস্থিত আরও সাতটি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল ৫-২০ বছরের জন্য ভাড়া-ভিত্তিক লিজ দেওয়ার জন্য সাতটি বেসরকারি সংস্থাকে চূড়ান্ত করেছে সরকার।

বেসরকারি এসব প্রতিষ্ঠান হচ্ছে- বে গ্রুপ, রশিদ গ্রুপ, পান্ডুঘর গ্রুপ, স্টিলমার্ক গ্রুপ, ফরচুন গ্রুপ এবং অস্ট্রেলিয়া-ভিত্তিক গোল্ডেন ফাইবার অস্ট্রেলিয়া পিটিওয়াই লিমিটেড।

এর আগে প্রথম দফায়, বাংলাদেশ জুট মিলস কর্পোরেশন (বিজেএমসি) দরপত্রের মাধমে চারটি পাটকল বেসরকারি খাতে ছেড়ে দিয়েছে।

ইজারা দেওয়া পাটকলগুলো হলো- জাতীয় জুট মিলস, আরআর জুট মিলস, এমএম জুট মিলস, গুল আহমেদ জুট মিলস, যশোর জুট ইন্ডাস্ট্রিজ, দৌলতপুর জুট মিলস এবং প্লাটিনাম জুট মিলস।

২০২০ সাল থেকে বন্ধ থাকা মিলগুলিকে পেতে হলে, চূড়ান্ত চুক্তিতে সই করার জন্য ইজারাদারদের ২৪ মাস আগে ভাড়া দিতে হবে। লিজের শর্ত অনুযায়ী, ভাড়া পরিশোধের জন্য তারা ছয় মাস সময় পাবে।

ইজারা দেওয়ার জন্য চূড়ান্ত করা বেসরকারি কোম্পানিগুলো হয় ইতিমধ্যেই পাট ব্যবসায় নিয়োজিত অথবা দেশে-বিদেশে পরিবেশবান্ধব পাটজাত পণ্যের ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনা করে এ খাতে নতুন বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে।

ইজারা শর্তাবলীর অধীনে, ফার্মগুলিকে শুধুমাত্র পাট ও পাটজাত পণ্য উৎপাদনের জন্য মিলের বিদ্যমান যন্ত্রপাতি, জমি এবং অন্যান্য সক্ষমতা ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হবে। কিন্তু, তারা ব্যাংক ঋণ পাওয়ার জন্য মিলের সম্পত্তি বন্ধক রাখতে পারবে না।

ইজারা গ্রহীতারা মিলগুলিকে তার নিজস্ব নামে এবং পদ্ধতিতে পরিচালনা করবে, এবং নিজস্ব ব্যাংক হিসাব ও অন্যান্য সম্পর্কিত নথির মাধ্যমে লেনদেন করবে।

বিজেএমসি সূত্রে জানা গেছে, রশিদ গ্রুপের সহযোগী সংস্থা- রশিদ অটোমেটিক রাইস মিলস লিমিটেড, ঢাকা জোনের অধীনে সিরাজগঞ্জে অবস্থিত জাতীয় জুট মিলস। দেশের চালের বাজারে ৩০ শতাংশ অংশীদারিত্বসহ গ্রুপটি ইতিমধ্যে আলেয়া জুট মিলস নামে একটি পাটকলেরও মালিক।

বিজেএমসি চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে আরআর জুট মিল লিজ দেওয়ার জন্য পান্ডুঘর গ্রুপের ইন্টারস্টফ অ্যাপারেলস লিমিটেডকেও বেছে নিয়েছে। বে গ্রুপের গুড ব্যাগ অ্যান্ড অ্যাকসেসরিজ লিমিটেড, বেস্টলা লিমিটেড এবং জুট ফাইবার্স বিডি এতে যৌথ উদ্যোগে বিনিয়োগ করবে।

একই অঞ্চলে অবস্থিত এমএম জুট মিলস স্টিলমার্ক গ্রুপের স্টিলমার্ক বিল্ডিং লিমিটেডের কাছে ইজারা দেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি প্রি-ইঞ্জিনিয়ারড স্টিল বিল্ডিং প্রস্তুতকারক। এই প্রথম গ্রুপটি পাট খাতে প্রবেশ করছে।

আরমাডা স্পিনিং মিলস সীতাকুণ্ডের গুল আহমেদ জুট মিলস এবং ফিনস্টে ইকো রিসোর্ট অ্যান্ড এগ্রো পার্ক পাবে যশোর জুট ইন্ডাস্ট্রিজ।

গোল্ডেন ফাইবার অস্ট্রেলিয়া পিটিওয়াই লিমিটেড খুলনার খালিশপুরে অবস্থিত দৌলতপুর জুট মিলের ইজারা পেয়েছে এবং ফরচুন সুজ প্লাটিনাম জুট মিলস অধিগ্রহণ করেছে।

গোল্ডেন ফাইবার অস্ট্রেলিয়া পিটিওয়াই এবং স্লেগাহ হোল্ডিংস পিটিওয়াই লিমিটেড দৌলতপুর জুট মিলসে বিনিয়োগ করবে।

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ফরচুন গ্রুপের একটি কোম্পানি ফরচুন সুজ প্ল্যাটিনাম জুট মিলস লিজ নিয়েছে, তবে এতে বিনিয়োগ করবে না। তার পরিবর্তে, বিনিয়োগ করবে এ গ্রুপের আরেকটি কোম্পানি ফরচুন জুটেক্স।

বছরের পর বছর ধরে ক্রমবর্ধমান লোকসানের মুখে, ২০২০ সালে সরকার প্রায় ২৫ হাজার শ্রমিককে গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে বিদায় জানায়, বন্ধ করে ২৫টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল।

২০২১ সালের এপ্রিলে সরকার এই ২৫টি পাটকলের মধ্যে ১৭টিকে বেসরকারি খাতে ৫-২০ বছরের জন্য ইজারা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। পরবর্তী সময়ে এই সময়কাল আরও বাড়ানোর সম্ভাবনাও রাখা হয়েছে।

পরবর্তীতে, বিজেএমসি একটি আন্তর্জাতিক দরপত্র প্রণয়ন করে যাতে স্থানীয়, বিদেশি এবং যৌথ উদ্যোগের প্রতিষ্ঠান দরপত্র প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারে।

এরপর দুটি ভারতীয় এবং একটি ব্রিটিশসহ মোট ২৪টি সংস্থা ১৪টি মিলের বিপরীতে ৫৯টি প্রস্তাব জমা দেয়। এতে খুলনার তিনটি মিলের জন্য বেসরকারি কোম্পানির কাছ থেকে কোনো প্রস্তাব পাওয়া যায়নি।

ছয় মাসেরও বেশি সময় দরপত্র প্রক্রিয়ার পর, বিজেএমসি পাঁচটি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল ইজারা দেওয়ার জন্য মাত্র পাঁচটি বেসরকারি কোম্পানিকে চূড়ান্ত করে।

এ পাঁচটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হলো- ইউনিটেক্স গ্রুপ, সাদ মুসা গ্রুপ, মিমু জুট মিলস, জুট অ্যালায়েন্স লিমিটেড, বে গ্রুপের যৌথ উদ্যোগ এবং যুক্তরাজ্যের জুট রিপাবলিক।

কিন্তু বিদেশি কোম্পানি ২৪ মাসের অগ্রিম ভাড়া পরিশোধ করে ইজারা নিতে অপারগতা প্রকাশ করে। তাই বিজেএমসি শেষপর্যন্ত চারটি মিল লিজ দেয়।

চূড়ান্ত চুক্তি সইয়ের পর, জুট অ্যালায়েন্স লিমিটেড নরসিংদীতে বাংলাদেশ জুট মিলস লিমিটেড এবং ইউনিটেক্স গ্রুপ যথাক্রমে চট্টগ্রামে কেএফডি জুট মিলস ইজারা পায়, যার মেয়াদ ২০ বছর।

কেএফডি জুট মিলের তিনটি ইউনিট রয়েছে – কর্ণফুলী জুট মিল, ফুরাত কর্ণফুলি কার্পেট ফ্যাক্টরি এবং ডাইভারসিফাইড ডেকোরেটিভ ফেব্রিক্স। দুটি মিল ইতোমধ্যেই উৎপাদনে চলে গেছে।

বাকি দুটি প্রতিষ্ঠান বিজেএমসির সঙ্গে এখনো ইজারা চুক্তি চূড়ান্ত করেনি।

ইজারার শর্ত অপরিবর্তিত রেখে, বিজেএমসি এই বছরের শুরুতে ১৩টি মিল ইজারা দেওয়ার জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ে একটি দরপত্র আহ্বান করেছে।

এতে সাড়া দিয়ে প্রায় ১৮টি দেশি-বিদেশি কোম্পানি দরপত্র জমা দেয়। এর মধ্যে দুটি ভারতীয়সহ চারটি কোম্পানি বিদেশি।

ভারতীয় কোম্পানিগুলো খুলনা অঞ্চলে সাতটি মিল ইজারা দেওয়ার জন্য আবেদন করলেও একটির জন্যও তারা যোগ্য বিবেচিত হয়নি।