বিশ্বকাপ সামনে রেখে কাতারে মাদক পাচারের হিড়িক

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: ফিফা বিশ্বকাপ-২০২২ শুরু হতে আর এক সপ্তাহও বাকি নেই। তার আগেই যেন কাতারে অবৈধ নেশাদ্রব্য পাচারের হিড়িক পড়ে গেছে। বিভিন্নভাবে লুকিয়ে উপসাগরীয় দেশটিতে মাদকদ্রব্য পৌঁছানোর চেষ্টা করছে চোরাকারবারিরা। এরই মধ্যে এ ধরনের কয়েকটি চালান ধরাও পড়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) স্থানীয় সংবাদমাধ্যম দ্য পেনিনসুলা জানিয়েছে, হামাদ বন্দর দিয়ে জর্দা জাতীয় অবৈধ তামাক পাচারের একটি প্রচেষ্টা নস্যাৎ করে দিয়েছে কাতারের সামুদ্রিক শুল্ক বিভাগ।

কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, খাদ্যসামগ্রীর একটি চালানের ভেতর অবৈধ মাদক রয়েছে সন্দেহে তল্লাশি চালানো হয়। সেখান থেকে ১ হাজার ৩৩৮ ব্যাগ তামাক উদ্ধার করা হয়। জব্দ করা নিষিদ্ধ দ্রব্যগুলোর মোট ওজন প্রায় ১ হাজার ৬৭২ কিলোগ্রাম।

কয়েকদিন আগে হামাদ বন্দর কাস্টমস কর্তৃপক্ষ নারকেল ও লেবুর ভেতর লুকানো একই ধরনের মাদকের আরেকটি চালান জব্দ করেছিল।

জানা যায়, কাতারে অবৈধ দ্রব্য শনাক্ত করতে কাস্টমস কর্মকর্তাদের সর্বাধুনিক যন্ত্রসহ সবধরনের সহায়তা দেওয়া হয়। যাত্রীদের শারীরিক ভাষা বুঝতে এবং চোরাকারবারিদের নতুন নতুন কৌশল সম্পর্কে সচেতন করতে ক্রমাগত প্রশিক্ষণও পান তারা।

সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ২১ নভেম্বর পর্দা উঠবে ফুটবল মহাযজ্ঞের ২২তম আসরের। এবারের বিশ্বকাপ দেখতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ১২ লাখের বেশি ফুটবলপ্রেমী কাতারে যাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিপুল সংখ্যক দর্শনার্থীর কথা মাথায় রেখে ৫০ হাজার নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করছে উপসাগরীয় দেশটি। এর জন্য তারা মরক্কো, পাকিস্তান, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, ন্যাটোসহ বেশ কয়েকটি দেশের সঙ্গে নিরাপত্তা সহযোগিতা চুক্তি সই করেছে।

বিশ্বকাপ উপলক্ষে কাতারে তিন হাজার দাঙ্গা পুলিশ পাঠাচ্ছে তুরস্ক। আরও ১০০ জন বিশেষ পুলিশ কর্মকর্তা, ৫০ জন বোমা বিশেষজ্ঞ এবং ৮০টি প্রশিক্ষিত কুকুর পাঠানোরও ঘোষণা দিয়েছে তারা।