বিকল্প ব্যবস্থায় পার্বত্যবাসীদের দেখানো হচ্ছে ‘শান’

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: ঈদুল ফিতরে মুক্তি পায় সিয়াম আহমেদ ও পূজা চেরি অভিনীত আলোচিত ছবি ‘শান’। মুক্তির পর পরই দর্শক নন্দি হয় ছবিটি। রাজধানীর হলগুলো থেকে আসে হাউজফুলের খবর। তবে প্রযোজনা সংস্থার দাবী  ছবিটি শুধু শহরগুলোতেই অবিশ্বাস্য সাড়া পায় নি, গ্রামে-মফস্বলেও  ‘শান’ নিয়ে ছিল হইচই।

প্রযোজনা সংস্থা ফিল্মম্যান এবার ‘শান’কে তাই পৌঁছে দিচ্ছে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে। যারা হলে গিয়ে ‘শান’  উভোগ করতে পারেনি তারা এবার বড় পর্দায় উপভোগ করতে সিয়ামের অ্যাকশন ও পূজা চেরির রোমান্স।

বৃহস্পতিবার থেকে পার্বত্যজেলা রাঙ্গামটিতে বিকল্পব্যবস্থাপনায় শুরু হয় শান এর প্রদর্শনী। সেখানে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তন। গতকাল বিকাল ৫টা ও সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মিনিটে দেখানো হয় প্রথম ও দ্বিতীয় শো। শুক্রবার একই সময়ে সেখানে শো প্রদর্শিত হচ্ছে বলে জানান ‘শান’ এর নির্মাতা এম রাহিম।

 

আগামী ৫ ও ৬ জুন খাগড়াছড়ির নারানখাইয়া উপজেলা পরিষদ এলাকার খাগড়াছড়ি  ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বিকেল ৫টা ও সন্ধ্যা ৭টায় দুটি করে শো প্রদর্শন হবে।

এ বিষয়ে ছবিটির পরিচালক এম রাহিম বলেন, ‘আমরা শানকে পৌঁছে দিতে চাই দেশের প্রতিটি অঞ্চলের  প্রতিটি মানুষের কাছে।  যেন বড় পর্দায় উপভোগ সুযোগ পান তারা। এই লক্ষ্যেই পার্বত্য অঞ্চল থেকে শানের প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সারা দেশেই দেখানো হবে শান।’

‘শান’ ছবিটির কাহিনি সাজিয়েছেন আজাদ খান। ছবিটির ক্রিয়েটিভ প্রধানও তিনি। চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন যৌথভাবে আজাদ খান ও নাজিম উদ দৌলা। ফিলম্যান প্রডাকশনের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন  ওয়াহিদুর রহমান এবং এম আতিকুর রহমান।

আজাদ খান বলেন, ‘শানের মতো পুলিশ অ্যাকশন ছবি এর আগে বাংলাদেশে হয়নি। যে ভাবনা নিয়ে শান নির্মাণ করতে চেয়েছিলাম সেই ভাবনাকেও হার মানিয়েছে। ছবিটি মুক্তির পর দর্শকদের সাড়া পেয়েছি এটা আমাদের পরবর্তী সিনেমা নির্মাণে আগ্রহী করেছে। এবার ছবিটি আমরা পার্বত্য অঞ্চলের দর্শকদের জন্য দেখার ব্যবস্থা করেছি। পর্যায়ক্রমে সারা দেশেই প্রদর্শনের ব্যবস্থঅ করা হবে শান।