বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যেন ডেঙ্গু তৈরির কারখানা

CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বাঁশখালীর প্রাণকেন্দ্র পৌরসভায় অবস্থিত। ৫০ শয্যা বিশিষ্ট এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরকারিভাবে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন রোগী দূর-দূরান্ত থেকে চিকিৎসা নিতে আসেন।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ডেঙ্গু ভাইরাস জ্বর নামে একটি রোগ পুরো দেশে ছড়িয়ে পড়ে। দেশের প্রতিটি রোগী চাই সুষ্ঠু পরিবেশে চিকিৎসা সেবা নিতে।

কিন্তু প্রতিনিয়ত রোগীরা যে পরিমাণ ময়লা-আবর্জনার স্তপ সৃষ্টি করছে সে গুলো যথাসময়ে পরিষ্কার না করার কারণে যেকোনো সময় ডেঙ্গু মশার উপদ্রব সৃষ্টি হয়ে যেতে পারে। যার ফলশ্রুতিতে ব্যাপকহারে বেড়ে যেতে পারে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু রোগ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় মেডিকেলের বিভিন্ন জায়গায় ফেস্টুনে ফেস্টুনে ভরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মোবাইল নাম্বার। কিন্তু, উক্ত নাম্বারগুলোতে বারবার চেষ্টা করলেও কোনো অবস্থাতে কলের সংযোগ দেয়া সম্ভব হয়নি। চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা জানান সপ্তাহের মাথায় কিংবা পনের দিনে একবার পরিষ্কার করা হয় হাসপাতাল। এতে প্রচুর দুর্গন্ধ সহ্য করতে হয় রোগীদের।

তাছাডা চিকিৎসা সেবা নিতে আশা রোগীর ময়লা আবর্জনা গুলো ফেলার জন্য নির্দিষ্ট ডাস্টবিন থাকলে ও এটা নিয়মিত পরিষ্কার না করা ডাস্টবিন দিয়ে নানা দুর্গন্ধ সৃষ্টি হচ্ছে। নিয়মিত রোগীর চাপ বেডে যাওয়াতে তাদের ময়লা গুলো যেখানে সেখানে ফেলে মেডিকেল এর পরিবেশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

রোগীদের একটাই প্রাণের দাবি দৈনন্দিন মেডিকেল পরিষ্কার করতে হবে দৈনন্দিন মেডিকেলের ময়লা আবর্জনা গুলো যথাযথ স্থানে পুঁতে ফেলতে হবে। তাইলে আমরা শান্তি পাবে বলে আশা করেন।

এই ব্যাপারে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত আর এম ও হীরক কুমার পাল জানায় আমরা সব সময় চেষ্টা করি মেডিকেল এর সুষ্ট পরিবেশে চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে। কিন্তুু মাঝে মাঝে সঠিক সময়ে পরিছন্নতা কর্মীরা না আসায় এই অবস্থা হয়।

এই ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মোমেনা আক্তার বলেন এই ব্যাপারে যেহেতু মেয়র রয়েছে ওনি বিশেষ নজর দিবেন। তবে আমরা সবাই আশা করব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন যেন রাখে।