বাঁশখালী’র সেই আলোচিত ইউপি নির্বাচন সম্পন্ন, নৌকা প্রার্থী জয়ী

নৌকা প্রতীক প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরী ৯ হাজার ২ শত ৯২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

বাঁশখালী প্রতিনিধি: ইভিএম নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে কয়েক দফা নির্বাচন বন্ধ হওয়া বাঁশখালীর চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অবশেষে আজ সকাল ৮ টায় শুরু হয়ে ইভিএম এর মাধ্যমে বিকাল ৪ টায় শেষ হয়।

সন্ধ্যা ৭ টা ৩০ মিনিটের দিকে নির্বাচনী ফলাফল সরকারিভাবে প্রকাশ হয়। এতে নৌকা প্রতীক প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরী  ৯ হাজার ২ শত ৯২ ভোট পেয়ে  নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী আনারস মার্কা নিয়ে ফজলুল কাদের পেয়েছেন ৫ হাজার ৭ শত ১৬ ভোট এছাড়াও

৯ টি ওয়ার্ডে ৯ জন সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত সাধারণ ৩ জন মহিলা সদস্য ও নির্বাচিত হয়।

নৌকা প্রতীক প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরী বেলা ১টায় সাংবাদিকদের বলেন, প্রত্যেকটি কেন্দ্রে সুন্দর ভোট হচ্ছে তবে ৭ নাম্বর ও ২নং কেন্দ্রে আনারস মার্কা প্রতীক প্রার্থী বহিরাগত দিয়ে প্রভাব বিস্তার করছে।

চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের রিটানিং কর্মকর্তা রকর চাকমা বলেন, ৯টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট সম্পন্ন হয়েছে । তবে ভোট প্রদানে প্রভাব দেখানোর মতো কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, ইভিএম ভোট প্রসঙ্গে গত ২৮ মে নৌকা প্রতীক প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরী বেঁফাস বক্তব্য দেয়ার অপরাধে গত ১৫ জুন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা নির্বাচন ৫ জুন নির্বাচন কমিশন স্থগিত ঘোষণা করেন। এর পর গত ৩ জুলাই নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বাঁশখালীর চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন আগামী ১৪ জুলাই  হবে বলে ঘোষণা দেন। এই লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার (১২ জুলাই) নির্বাচনের  দুই দিন আগে নির্বাচন কমিশন আবারো এক প্রজ্ঞাপনের অনুবলে নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন। ওই প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, ফজলুল কাদের চৌধুরী নামের এক চেয়ারম্যান প্রার্থী হাইকোর্টে রিট করায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। উক্ত নির্বাচনে ৪ জন চেয়ারম্যান, ৯জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য, ৫০ সাধারণ সদস্যসহ ৬৪ জন মোট প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতার লক্ষ্যে প্রচারণা করে আসছিল। ৯টি ওয়ার্ডের ১০টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার ১৫ হাজার ৫৯০ জন। নির্বাচন কমিশনের এ ঘোষণার পর থেকে প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে অস্থিরতা ভাব ছড়িয়ে পড়েছে। বাঁশখালী উপজেলা সদরে প্রার্থীদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন উপজেলা মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও প্রার্থী হিরা মনি, জাফরুল ইকবাল, মাহমুদুল হক সহ অনেকে।

আরও জানা গেছে,  বাঁশখালী উপজেলায় গত ১৫ জুন ১৪ ইউনিয়নে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ছিল। ইভিএম ভোট প্রসঙ্গে বেঁফাস বক্তব্য দেয়ায় গত ৫ জুন ইসির উপসচিব মো. আতিয়ার রহমানের স্বাক্ষর করা পৃথক দুইটি চিঠি চট্টগ্রাম জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও বাঁশখালী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছিল। এক পত্রাদেশে বেঁফাস বক্তব্যকারী  নৌকার প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ এবং অপর পত্রাদেশে আগামী ১৫ জুনের নির্বাচন  পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়। গত ৫জুন সোমবার রাতে  বাঁশখালীর চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান এবং নৌকার  প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ ফয়সাল আলম বাদী হয়ে বাঁশখালী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।  এর পর চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরী উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়েছেন। বাকী ১৩ ইউনিয়নে গত ১৫ জুন নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।