ফটিকছড়িতে গৃহবধু লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের ঘটনায় এলাকাবাসীর মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচী

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি : ফটিকছড়ি উপজেলার সুন্দরপুরের শ্বশুর বাড়ির শয়ন কক্ষ থেকে  গৃহবধূ তানজিদা নাসরিন লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের ঘটনার প্রতিবাদে  নাজিরহাট নতুন রাস্তার মাথায়  মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসুচী পালিত হয়েছে।

শুক্রবার( ২৭ মে) বিকালে নিহত লিমার পরিবার ও  এলাকাবাসী  এ কর্মসূচীর আয়োজন করে।

বেলা গড়াতেই নির্ধারিত মানববন্ধন কর্মসূচি প্রতিবাদ সভায় রূপ নেয়।   এতে বক্তব্য রাখেন উত্তর জেলা  আওয়ামীলীগ নেতা শওকত উল আলম শওকত, উপজেলা যুবলীগ নেতা নাজমুল হুদা মনি, সমাজ সেবক মজিবুল হক,  নাসির উদ্দিন, শরীফুল হাসান, সেলিম জাহাঙ্গীর, জাবেদ, রায়হান রুমি, মোহাম্মদ কামাল, মোস্তফা জিয়া,তানিম,  নিহত লিমার পিতা  শফিউল আলম বাবুল, ভাই মোকতার হোসেন মুরাদসহ আরো অনেকে।

প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন গৃহবধূ লিমা কখনো আত্মহত্যা করতে পারে না। শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে সুপরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়েছ।  ক্ষোভ প্রকাশ করে তারা আরো  বলেন  এ মামলার এজাহারভুক্ত আসামী ননদ বেবি আকতার ও ভাশুর ফরিদ  দিব্যি ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ এখনো তাদের গ্রেফতার করতে পারেনি।

বক্তব্যে নিহত লিমার পিতা  ও ভাইয়ের দাবি, বিয়ের পর থেকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন বিভিন্ন সময়ে লিমাকে যৌতুকের জন্য  নির্যাতন করতো।  শেষ পর্যন্ত তারা  লিমাকে  হত্যা করে লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিয়ে  আত্নহত্যা বলে চালিয়ে দিতে চাইছে।  তারা আরো বলেন আমরা পুলিশ-প্রশাসনের নিকট এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত  ও জড়িতদের  ফাঁসির দাবি জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য , সোমবার (২৩ মে)  সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের  কাজিরখীর গ্রামের শ্বশুর বাড়ির  শয়নকক্ষ থেকে গৃহবধু লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।  এর পূর্বে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ভাশুর কর্তৃক লিমার  অসুস্থতার খবর পেয়ে মা,বাবা ও ভাই শ্বশুর বাড়িতে গিযে দেখে লিমার ঝুলন্ত লাশ।  এদিন রাতে  স্বামী হাবিবকে প্রধান, ননদ বেবি আকতার  ভাসুর ফরিদকে সহযোগি এবং ৫/৬ জনকে অজ্ঞাতানামা আসামী করে  ফটিকছড়ি থানায়   একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন ভাই মোকতার হোসেন মুরাদ। লাশ উদ্ধারের পর  স্বামী হাবিবকে  আটক করে কারাগারে পাঠালেও এজাহারভুক্ত অন্য আসামীদের  এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি  পুলিশ।