প্রচারণা ছাড়াই অনলাইনে টিকিট বিক্রি: বন্ধ হচ্ছে সোনার বাংলা ও উপকূল এক্সপ্রেস

CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস প্রতিবেদক: যাত্রী স্বল্পতার কারণে শনিবার (২০ জুন) থেকে বন্ধ হচ্ছে চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে চলাচলকারী বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেন ‘সোনার বাংলা এক্সপ্রেস’। করোনা পরিস্থিতিতে দুই মাসেরও অধিক সময় বন্ধ থাকার পর গত ৩১ মে থেকে পুনরায় চালু হয়েছিল ট্রেনটি।

২১ জুন থেকে বন্ধ রাখা হবে উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য অনলাইনে ধারণ ক্ষমতার ৫০ ভাগ আসন বিক্রি করা হলেও অধিকাংশ টিকেটই অবিক্রিত থেকে যাচ্ছিল। আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ায় রেল কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে সোনার বাংলা এক্সপ্রেস চলাচল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানিয়েছে রেলওয়ের একটি সূত্র।

জানা গেছে, গত বুধবার বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালকের (ডিজি) কার্যালয় থেকে জারি করা এক নির্দেশনায় ২০ ও ২১ জুন সোনার বাংলা ও উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস বন্ধ রাখা হবে। নোয়াখালী জেলা লকডাউন হলে উপকূল এক্সপ্রেস (৭১১/৭১২) ট্রেন দুটি লাকসাম পর্যন্ত যাত্রী পরিবহন করছে।

তবে চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে সুবর্ণ এক্সপ্রেস, চট্টগ্রাম-সিলেট রুটে উদয়ন এক্সপ্রেস এবং চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটে মেঘনা এক্সপ্রেস চালু থাকবে।’

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন সূত্র জানায়, গত বুধবার সোনার বাংলায় ২৯৭টি সিটের বিপরীতে মাত্র ৯২টি, সুবর্ণ এক্সপ্রেসে ৪৫৪টির বিপরীতে ১৩২টি এবং মেঘনা এক্সপ্রেসে ৪৬৪টির বিপরীতে ৩৩১টি টিকিট বিক্রি হয়েছে। অন্যদিকে, উদয়ন এক্সপ্রেসে ৩১৮টি সিটের বিপরীতে টিকিট বিক্রি হয়েছে ২৪০টি।

করোনা পরিস্থিতিতে টানা ৬৬ দিন ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকার পর ৩১ মে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে পুনরায় চালু হয় ট্রেন চলাচল।

যাত্রীদের অভিযোগ, কোনো প্রচারণা ছাড়াই টিকিট বিক্রি করা হচ্ছিল অনলাইনে। অনলাইনে টিকিট কাটতে জানেন না, কাউন্টারেই টিকিট কাটতে অভ্যস্ত যাত্রীরা। নিয়মকানুনও জানেন না অনেকে। এ কারণে টিকিটের বিক্রি কম।