সিপ্লাসে সংবাদ প্রচারের পর পুকুর ভরাটের দায়ে তিন মালিককে পরিবেশ অধিদপ্তরের জরুরী তলব

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অফিস। ফাইল ছবি।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

প্রকাশ্যে পুকুর ভরাটের দায়ে নগরীর পূর্ব ফরিদা পাড়ার তিন পুকুর মালিককে জরুরী তলব করেছেন পরিবেশ অধিদপ্তর ।

নগরীর চান্দগাঁও থানাধীন পূর্ব ফরিদা পাড়া উমর মিয়া কন্ট্রাকটারের বাড়ী সংলগ্ন তিনটি পুকুরের ভরাট নিয়ে, গত ১০ সেপ্টেম্বর জনপ্রিয় অনলাইন সিপ্লাসটিভিতে “আইন অমান্য করে চলছে প্রকাশ্যে পুকুর ভরাটের উৎসব ’’ শিরোনামে সংবাদ প্রচারের পর পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর পুকুর ভরাটে সাথে জড়িত তিন মালিককে জরুরী তলব করেছেন।

আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর সোমবার সকালে পুকুর ভরাটের দায়ে অভিযুক্ত মো.ফোরকান উদ্দিন, মজিবুর রহমান ও মো. আলমগীরকে নোটিশ দিয়ে ডেকে পাঠিয়েছেন পরিবেশ অধিদপ্তর।

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগরের সহকারী পরিচালক সংযুক্ত দাশ গুপ্তা সিপ্লাসকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সিপ্লাসের প্রতিবেদনের পরপর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযুক্ত তিন মালিককে নোটিশ দিয়েছি ।

তিনি আরো বলেন, পুকুর ভরাটের জন্য দায়ী কাউকে ছাড় দিবনা।অভিযোগের প্রমাণ পেলে তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ পরিবেশ ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আলীউর রহমান সিপ্লাসের মাধ্যেমে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগরকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন এইভাবে পরিবেশ অধিদপ্তর এগিয়ে আসলে প্রকাশ্যে পুকুর ভরাট রোধ হবে, পাশাপাশি রক্ষা পাবে প্রাকৃতিক ভারসাম্য।

পরিবেশ আন্দোলনের নেতা পরিবেশবিদ অধ্যাপক ড.মো.ইদ্রিস আলী পুকুর ভরাট প্রতিরোধে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগরের প্রশংসা করে বলেন,পরিবেশ অধিদপ্তর এইভাবে এগিয়ে আসলে পুকুর ভরাট থেকে নগরী রক্ষা পাবে।

তিনি বলেন, পুকুর রক্ষার মাধ্যমে নগরীর পুরাতন ঐতিহ্য কিছুটা হলেও ফিরে পাবে।

উল্লেখ্য, ২০০০ সালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জারি করা এক আদেশে বলা হয়, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা ও জনগণের আশ্রয়স্থল রক্ষা করতে কোন অবস্থায় খাল, বিল, পুকুর-নালাসহ প্রাকৃতিক জলাশয় ভরাট করা যাবে না। জনস্বার্থে এর ব্যতিক্রম করতে হলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমতি নিতে হবে। অনুমতি ছাড়া নিজের মালিকানাধীন পুকুরও ভরাট করা যাবে না।