‘পরাণ’, ‘হাওয়া’র পর শতাধিক সিনেমার প্রস্তাব পেয়েছেন রাজ

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: কোনো সিনেমা ব্যবসাসফল হলে সেই ছবির তারকাদের কাজের প্রস্তাব হু হু করে বাড়ে। তাই বলে তিন মাসে শতাধিক চিত্রনাট্য! শুধু তা-ই নয়, সেগুলোর সিংহভাগ ফিরিয়েও দিয়েছেন এ অভিনেতা। ঢালিউড চলচ্চিত্র অঙ্গনে এমন ঘটনা হয়তো আগে তেমন ঘটেনি। এবার এমনটাই ঘটল চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের ক্ষেত্রে। ‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’ সিনেমাদ্বয় এই অভিনেতার ক্যারিয়ার অন্য উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে। তারপরে পেয়েছেন একের পর এক প্রস্তাব। সেগুলো কেন ফিরিয়ে দিয়েছেন এই তারকা?
মজার ব্যাপার হলো, এই অভিনেতার ‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’ সিনেমা ব্যবসাসফল হলেও তারপর তেমন কোনো সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হননি। কেন? মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, তাহলে কি রাজ কোনো প্রস্তাব পাননি? রাজকে নিয়ে নির্মাতা, প্রযোজকদের আগ্রহ নেই! এমনটা হওয়ার কথা নয়। সরাসরি রাজের কাছে প্রশ্ন ছিল সিনেমার প্রস্তাব-সম্পর্কিত বিষয়ে। কথার শুরুতেই এই অভিনেতা জানালেন, কাজের সংখ্যা অযথা বাড়াতে চান না, তিনি সংখ্যার চেয়ে মানে বিশ্বাসী। নিজে অভিনয় করে আনন্দ পাবেন, সেই গল্পগুলোতে নাম জড়াতে চান।

পরাণ’ ও ‘হওয়া’ সিনেমা দিয়ে রাজ ঢালিউডে নিজের জায়গা স্থায়ী করে নিয়েছেন, সেটা নির্দ্বিধায় বলা যায়। এর সঙ্গে হয়তো ঢালিউডের দর্শকেরাও দ্বিমত করবেন না। দর্শকদের কাছে ভরসা হয়ে ওঠা রাজের কাছে জানতে চাইলাম, এর মধ্যে কতটি সিনেমায় অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছেন? তিনি বলেন, ‘এর মধ্যে অনেক সিনেমার প্রস্তাব পেয়েছি। কিন্তু বেশির ভাগ গল্পই আমার কাছে ভালো লাগেনি। হাতে গোনা কটি গল্প কিছুটা ভালো লেগেছে, সেগুলো নিয়ে কথা হচ্ছে; কিন্তু আমি এই মুহূর্তে কোনো সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হতে চাই না। আমার হাতে গিয়াস উদ্দিন সেলিম ভাইয়ের “কাজল রেখা”সহ আরও একটি সিনেমার কাজ রয়েছে। দুটি কাজ শেষ করেই অন্য সিনেমা নিয়ে ভাবব।

প্রশ্নের আসল উত্তর এখনো পাওয়া গেল না। আবার রাজের কাছে জানতে চাইলাম, সংখ্যায় কতগুলো চিত্রনাট্য পেয়েছেন? সংখ্যা বলতে নারাজ রাজ। পরে এই অভিনেতা হেসে বললেন, ‘বাসা, হোয়াটসঅ্যাপস, মেসেঞ্জারে মিলিয়ে অনেক চিত্রনাট্য পেয়েছি। সংখ্যা তো গুনিনি। তবে ১০০-এর বেশি হবে। অনেকগুলো আমি পড়েছি, এখনো পড়ছি। হয়তো দর্শক আমার সিনেমা গ্রহণ করছেন। তাই বলে হুটহাট বছরে একের পর এক ছবি করে যেতে চাই না। শুরু থেকেই আমি এভাবে কাজ করতে চাইনি। যখন আমার অর্থের অনেক দরকার ছিল, তখনই করিনি। এখন তো প্রশ্নই ওঠে না। এর মানে এই নয় আমার অনেক টাকাপয়সা। কাজে ছাড় দিতে চাই না। সেই জায়গা থেকে কথাগুলো বলছি। গল্প ভালো লাগলেই সুখবর দেব।’

রাজকে আপাতত নতুন কোনো সিনেমায় শুটিং করতে দেখা যাবে না। তাঁর হাতে থাকা দুটি সিনেমার শুটিং শেষ করে আগামী বছর মার্চ এপ্রিলে তিনি আবার নতুন কোনো সিনেমায় নাম লেখাবেন। রাজ বলেন, ‘আমি একসঙ্গে অনেকগুলো কাজ করতে পারি না। এতে মানসিক চাপ অনুভব করি। মানসিক চাপে থাকলে কাজে মনোযোগ দিতে পারি না। একটা কাজ শেষ করে আরেকটা কাজে মনোযোগ দিতে চাই। সেই জন্যই সময় নিতে চাই।’ শেষে জানালেন, পরিচালক ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে রোমান্টিক, থ্রিলার, ক্রাইম ধারার গল্পগুলোই বেশি পাচ্ছেন।