পটিয়ায় মাকে হত্যার ঘটনায় অস্ত্রসহ ছেলেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

গ্রেফতার মাঈনুল
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভার সাবেক মেয়র ও জাতীয় পার্টির (জাপা) কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা প্রয়াত সামশুল আলম মাস্টারের স্ত্রী জেসমিন আক্তারকে (৫০) গুলি করে হত্যার ঘটনায় ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

বুধবার (১৭ আগষ্ট) রাতে চট্টগ্রাম নগরীর একটি এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার যুবকের নাম মাঈনুদ্দীন মো. মাইনু (২৯)। তিনি সামশুল আলম মাস্টারের মেজ ছেলে। গ্রেপ্তারের সময় হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রটি উদ্ধার করেছে র‍্যাব। চট্টগ্রাম র‍্যাব-৭-এর সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) নুরুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার বেলা সোয়া দুইটার দিকে জেসমিন আক্তারকে গুলি করে হত্যার ঘটনা ঘটে। পটিয়া পৌরসভার সবজারপাড়ায় নিজ বাড়ির শয়নকক্ষে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকে মাঈনুদ্দীন পলাতক ছিলেন।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুরে সামশুল আলমের স্ত্রী জেসমিন আক্তার ও মেয়ে শায়লা শারমিন ব্যাংক থেকে সামশুলের রেখে যাওয়া টাকা তুলতে গেলে মাঈনুদ্দীন ক্ষুব্ধ হন। এ সময় মাঈনুদ্দীন প্রথমে বোন শায়লাকে গুলি করেন এবং পরে মা জেসমিনকে লক্ষ্য করে গুলি করেন। প্রথম গুলিটি ফসকে গেলেও দ্বিতীয় গুলিটি জেসমিনের চোখের নিচে লাগে। পরে মাঈনুদ্দীন সেখান থেকে সটকে পড়েন।

গুলির শব্দ পেয়ে স্থানীয় লোকজন জেসমিন আক্তারকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন। তাঁকে প্রথমে পটিয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তবে হাসপাতালে যাওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে শায়লা শারমিন বাদী হয়ে ভাই মাঈনুদ্দীনকে আসামি করে পটিয়া থানায় হত্যা মামলা করেন। উল্লেখ্য, গত ১৩ জুলাই জাপা নেতা ও সাবেক মেয়র সামশুল আলম মাস্টার মারা যান। এর এক মাস পরই এ ঘটনা ঘটল।