‘নেতাকর্মীরা জীবন দিয়ে জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র রুখবে’

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মুজিবুল হক চুন্নু এমপি বলেছেন, ‘জাতীয় পার্টি নিয়ে আর কেউ খেলতে পারবে না। জিএম কাদেরের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি এখন যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি শক্তিশালী। যারা জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে চায়, তারা বোকার স্বর্গে বাস করছে। জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে কেউ সফল হবে না। জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা প্রয়োজনে জীবন দিয়ে পার্টির বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র নসাৎ করে দেবে।’

রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থীদের সঙ্গে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন—দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, এস এম মান্নান, মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, সুনীল শুভরায়, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, সফিকুল ইসলাম সেন্টু, আব্দুর রশীদ সরকার, আলমগীর সিকদার লোটন, এমরান হোসেন মিয়া, জহিরুল ইসলাম জহির, মোস্তফা আল মাহমুদ, জহিরুল আলম রুবেল, উপদেষ্টা একেএম মোস্তাফিজুর রহমান, মাহমুদুর রহমান, অ্যাডভোকেট তোফাজ্জেল হোসেন, মো. ইলিয়াস উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার মো. সিরাজুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মধু, মো. নুরুল ইসলাম ওমর প্রমুখ।

মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, ‘আগামী জাতীয় নির্বাচন কারো জন্যই সহজ হবে না। যেনতেন নির্বাচন করে কেউ আর পার পাবে না। আমরা ৩০০ আসনেই নির্বাচন করতে প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ক্ষমতার দ্বন্দ্বে সহিংসতা শুরু করেছে। দেশের মানুষ সহিংস রাজনীতি পছন্দ করে না। এই সুযোগে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের উন্নয়ন ও সুশাসনের দাওয়াত পৌঁছে দেবে।’

জাতীয় পার্টির মহাসচিব বলেন, ‘আগামী নির্বাচন অনেকের জন্যই অস্তিত্বের প্রশ্ন হয়ে দেখা দেবে। যারা পরাজিত হবে, তারা ইতিহাস থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে।’

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন—শফিকুল ইসলাম শফিক, এ এইচ এম গোলাম শহীদ রঞ্জু, মৌলভী ইলিয়াস, জসীম উদ্দিন ভূঁইয়া, আমির হোসেন ভূঁইয়া, সালাউদ্দিন মুক্তি, মো. মিজানুর রহমান, শাহীন মোস্তফা কামাল (ফারুক), খন্দকার ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ, আ স ম তিতাস মোস্তফা, মামুনুর রহিম সুমন, মীর শামছুল আলম লিপটন, নেওয়াজ আলী ভূঁইয়া, মো. আব্দুল কাদের খান কদর, মো. জাকির হোসেন খান, অ্যাডভোকেট মো. আলতাফ হোসেন, লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) মো. তছলিম উদ্দিন, এ এন এম রফিকুল আলম সেলিম, মইনুর রাব্বি চৌধুরী, ব্যারিস্টার খাজা তানভীর আহমেদ, এ এস এম জাহাঙ্গীর পাঠান প্রমুখ।