নিউইয়র্কে বাড়ছে গৃহহীনদের সংখ্যা

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: বাসস্থানের চরম সংকটে ভুগছে নিউইয়র্কবাসী। সবচেয়ে বড় এবং জনবহুল নগরী এই নিউইয়র্কে প্রায় এক কোটি মানুষের বসবাস। নগরীতে প্রয়োজনের তুলনায় বাড়ির সংখ্যা কম। ২০১৯ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটিতে ৩ লাখ ৪০ হাজার নতুন বাড়ির ঘাটতি ছিল। কিন্তু চাহিদার তুলনায় নতুন করে হাউজিং প্রকল্প বাস্তবায়িত না হওয়ায় ভয়াবহ আবাসন সংকটে পড়েছে নিউইয়র্ক সিটি। নজিরবিহীন বাড়ি ভাড়া এবং মূল্যস্ফিতির কারণে সিটির নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেনীর বাসিন্দাদের জীবন অতিষ্ঠ। সিটিতে দিন দিন বেড়েই চলেছে গৃহহীনদের সংখ্যা। অপরদিকে সীমান্ত পেরিয়ে আসা ইমিগ্র্যান্টরা ভীড় করছে নিউইয়র্ক সিটিতে।

নিউইয়র্ক সিটি মেয়র স্পিকার সহ সিটি কাউন্সিলের সিংহভাগ সদস্য আবাসন সংকট নিরসনে নতুন হাউজিং প্রকল্প বাস্তবায়নের পক্ষে। এমনকি প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দেশের বড় বড় শহরে তাগিদ দিচ্ছেন নতুন হাউজিং প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের। বিদ্যমান ভয়াবহ আবাসন সংকট রাজনীতির সব হিসেব নিকেষ পাল্টে দিচ্ছে।

নিউইয়র্ক সিটির রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে হাউজিং ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীরা অত্যন্ত প্রভাবশালী। রাজনীতিকদের বড় আর্থিক যোগানদাতাও তারা। সিটির কম পরিমাণ এবং অবহেলিত ও পতিত জায়গায় বহুতল ভবন করে সবধরণের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে হয় তাদেরকে। এজন্য সিটির প্রতিটি নিয়মনীতি মেনে চলার বাধ্যবাধকতাও রয়েছে। স্থানীয় কমিউনিটি বোর্ডসহ গোটা এলাকার মানুষের সুবিধা-অসুবিধা আমলে নিতে হয় বিনিয়োগকারীদের। সার্বিক বিবেচনায় নিউইয়র্ক সিটি এখন নতুন হাউজিং প্রকল্পের পক্ষে। আর এক্ষেত্রে একটি গতিরও সঞ্চার হয়েছে সর্বত্র। সিটির প্রায় অর্ধেক বাসিন্দাকে তাদের আয়ের এক তৃতীয়াংশেরও অধিক ব্যয় করতে হয় বাড়ি ভাড়ার জন্য। সিটির হোমলেসদের জন্য নির্ধারিত আবাসন ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে।