দোকান কর্মচারী ধ*র্ষ*ণে*র পর হ*ত্যা করে শিশু বর্ষাকে

লক্ষ্মণ দাশ।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম নগরীর জামালখানে নালা থেকে উদ্ধার হওয়া কুসুমকুমারী স্কুলের শিক্ষার্থী মারজানা হক বর্ষার খুনে সম্পৃক্ত লক্ষ্মণ নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। গ্রেফতার হওয়া দোকান কর্মচারী লক্ষ্মণের বরাতে পুলিশ জানায়, বর্ষাকে ধর্ষণের পর মুখ চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছিল লক্ষ্মণ।

থানা সূত্র জানায়, চিপস কিনে বাসায় ফেরার সময় জোর করে মুদির দোকানের গোডাউনে নিয়ে যায় কর্মচারি লক্ষ্মণ দাশ। গোডাউনে নিয়ে পাশাবিকভাবে ধর্ষণ করে ওই কর্মচারি, ধর্ষণের সময় গোপনাঙ্গে রক্ত বের হলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় চঞ্চল প্রকৃতির সাত বছরের শিশু কন্যা মারজান হক বর্ষাকে। পরে তাকে বস্তায় ভরে পাশের নালায় ফেলে দেয় পাষণ্ড লক্ষ্মণ।

এমন পাশবিকতার পরেও তার চলাফেরা কাজকর্মে কোন অস্বাভাবিক লক্ষণ দেখা যায়নি। দিব্যি কাজ করছিল মারজানদের প্রতিবেশি দোকান কর্মচারি ২৮ বছর বয়সী এ লক্ষ্মণ। নিখোঁজের তিনদিন পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নালা থেকে বস্তাবন্দী মরদেহ উদ্ধারের পর রাতে সন্দেহজন বেশ কয়েকজনকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে এ হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে নেয় জামালখানের মুদির দোকান শ্যামলী স্টোরের কর্মচারি লোহাগাড়ার বাসিন্দা লক্ষ্মণ দাশ।