তাইওয়ানে সৈন্য পাঠানোর প্রতিশ্রুতি প্রত্যাহার করল চীন

চীনের সঙ্গে একীভূত হলেও তাইওয়ানে সৈন্য পাঠানো হবে না এমন প্রতিশ্রুতি তুলে নিয়েছে চীন
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: কখনো তাইওয়ানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া হলে সেখানে সৈন্য কিংবা প্রশাসনিক কর্মকর্তা পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল চীন। সম্প্রতি চীন সেই প্রতিশ্রুতি প্রত্যাহার করে নিয়েছে। স্থানীয় সময় আজ বুধবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার চীন প্রকাশিত বেশ কিছু নথিপত্র থেকে এই তথ্য জানা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, এই ঘোষণার মাধ্যমে চীন আগে তাইওয়ানের স্বায়ত্তশাসনের ব্যাপারে যে নমনীয় মনোভাব দেখাত তা আরও কঠোর হতে যাচ্ছে। চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিংই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

তাইওয়ানের বিষয়ে এই সিদ্ধান্ত এমন এক সময়ে এল যার মাত্র একদিন আগে, চীন তাইওয়ানের আশপাশের জলসীমা বেশ কয়েক দিনব্যাপী সরাসরি সামরিক মহড়া চালানো শেষ করে। চীন সব সময়ই তাইওয়ানকে নিজস্ব ভূখণ্ড বলে দাবি করে এসেছে। তবে, সম্প্রতি তাইওয়ানে মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সফরের ফলে চীনের সঙ্গে তাইওয়ান ও যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধ তুঙ্গে ওঠে। জবাবে, চীন তাইওয়ানের আশপাশে এক নজিরবিহীন সামরিক মহড়া চালিয়ে এর প্রতিক্রিয়া দেখায়।

এর আগে, চীন ১৯৯৩ এবং ২০০০ সালে দুই দফা শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছিল। সেখানে বলা হয়েছিল, বেইজিং যেমনটা চায়—পুনরায় একত্রীকরণ , তা অর্জিত হলে চীন তাইওয়ানের ভূখণ্ডে কখনোই সেনা বা প্রশাসনিক কর্মকর্তা পাঠাবে না।

চীনের এমন অবস্থানের পর বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, চীন-তাইওয়ান একত্রীকরণের পর তাইওয়ান কতটা স্বায়ত্তশাসন ভোগ করবে সে বিষয়ে কোনো কিছুই উল্লেখ করা হয়নি। এর আগে, চীনের শাসক দল কমিউনিস্ট পার্টি চীন এবং তাইওয়ানের জন্য ‘এক দেশ, দুই নীতি’ প্রস্তাব করেছিল।