ঢাকা,ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়েতে ৪ কিলোমিটার যানজট

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে (ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে) টোল আদায়ে ধীরগতি লক্ষ করা গেছে। ভাঙ্গার বগাইল টোল প্লাজা এলাকায় ঢাকা থেকে ভাঙ্গাগামী যানবাহনের ৪ কিলোমিটারের বেশি ও ভাঙ্গা থেকে ঢাকাগামী পরিবহনগুলোর প্রায় এক কিলোমিটার যানজট দেখা দিয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় কোরিয়ান এক্সপ্রেসওয়ে করপোরেশন টোল আদায় শুরু করেছে।

আজ শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত সরেজমিনে বগাইল টোল প্লাজা এলাকায় দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কের ভাঙ্গার বগাইল টোল প্লাজার ১০টি টোল বুথের মধ্যে ৪টি বুথে টোল আদায় করা হচ্ছে। বাকি ৬টির মধ্যে ৩টিকে সক্রিয় করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

সচল ৪টি টোল বুথের দুটির মাধ্যমে ঢাকাগামী যানবাহন থেকে এবং বাকি দুটির মাধ্যমে ঢাকা থেকে ভাঙ্গাগামী যানবাহন থেকে টোল আদায় করা হচ্ছে। মাঝে মাঝে টোল আদায়ের দায়িত্বে থাকা কর্মীদের সঙ্গে যানবাহনের চালক ও যাত্রীদের তর্ক-বিতর্ক হচ্ছে।

টোল আদায়ের দায়িত্বে থাকা কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঢাকা থেকে ভাঙ্গাগামী ৫৫ কিলোমিটার এই এক্সপ্রেসওয়ের নাম দেওয়া হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক্সপ্রেসওয়ে। পদ্মা সেতু পার হয়ে শরীয়তপুরের জাজিরা এলাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত ২৩ কিলোমিটার মহাসড়ক ব্যবহার করলে প্রতিটি বড় বাসকে দিতে হবে ২০০ টাকা, মিনিবাস ১১০ টাকা, মাইক্রোবাস ৯০ টাকা, প্রাইভেটকার ৫৫ টাকা ও মোটরবাইক ১০ টাকা। এ ছাড়া, ট্রাকের ক্ষেত্রে ট্রেইলার ট্রাককে (সবচেয়ে বড় ট্রাক) টোল দিতে হবে ৬৭৫ টাকা, ভারী ট্রাকের ক্ষেত্রে ৪৪০ টাকা এবং মাঝারী আকারের ট্রাকের ক্ষেত্রে ২২০ টাকা।

ঢাকা থেকে বরিশালগামী ট্রাকচালক মো. লোকমান জামান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘পদ্মা সেতু পার হয়ে টোল প্লাজার ২ কিলোমিটার আগে যানবাহনের সারিতে ১ ঘণ্টা আটকে থাকার পর টোল দিতে পারলাম।’

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালুর পর গত ২-৩ দিন এক ঘণ্টা ১০ মিনিটে ভাঙ্গায় পৌঁছেছি। আজ থেকে এখানে আবার টোল চালু হওয়ায় যানজটে আটকে আছি দেড় ঘণ্টার বেশি সময় ধরে। তবুও সামনে প্রায় শতাধিক গাড়ি রয়েছে।’

মাদারীপুরের শিবচর থেকে ফরিদপুরগামী বাসযাত্রী মো. আলি শেখ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘শিবচর থেকে ফরিদপুর যেতে সময় লাগে দেড় ঘণ্টা। আজ আমাদের এখানে প্রায় ২ ঘণ্টা লেগে গেল।’

ব্যক্তিগত গাড়ি চালিয়ে ঢাকার উত্তরা থেকে মাদারীপুরের রাজৈরের গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছেন মো. রেজাউল করিম। তার সঙ্গে মা, স্ত্রী ও মেয়ে রয়েছেন।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর আজই ঢাকা থেকে নিজের গাড়িতে করে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছি। উত্তরা থেকে ৫৫ মিনিটে ভাঙ্গার এই টোলপ্লাজায় এসেছি। এখানে এসে প্রায় ২ ঘণ্টা পর টোল বুথের নাগাল পেলাম।’

এ বিষয়ে টোলপ্লাজার ডেপুটি ম্যানেজার দেলোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এখানে ১০টি বুথের মধ্যে ৪টি সচল রয়েছে। আমরা বাকি বুথগুলো চালু করার চেষ্টা করছি।’