‘ট্রফি ভাঙা’ আলীকদমের ইউএনও’কে ঢাকায় বদলি

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় বিজয়ীদের জন্য আনা ট্রফি (কাপ) ভেঙে আলোচনায় আসা বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মেহরুবা ইসলামকে ঢাকা বিভাগে বদলি করা হয়েছে।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাঠ প্রশাসন-২ থেকে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সিনিয়র সহকারী সচিব শেখ শামসুল আরেফীনের সই করা এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তার বদলির বিষয়টি জানা গেছে।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ঢাকা বিভাগে ন্যস্ত করা হলো।

প্রসঙ্গত গত ২৩ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় উপজেলার দুই নম্বর চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের রেপারপাড়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মেহরুবা ইসলাম ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় বিজয়ীদের জন্য আনা ট্রফি (কাপ) ভেঙে ফেলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার দুই নম্বর চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের রেপারপাড়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে “স্বাধীন যুব সমাজের” উদ্যোগে ২৩ সেপ্টেম্বর আবাসিক জুনিয়র একাদশ বনাম রেপারপাড়া বাজার একাদশের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ৭০ মিনিটের এই খেলায় কোনো দল গোল করতে না পারায় টাইব্রেকারের সিদ্ধান্ত দেন রেফারি। খেলায় চার টাইব্রেকারে আবাসিক জুনিয়র দলের চার গোল হয় এবং রেপারপাড়া একাদশের তিনটি গোল হয়। এতে আবাসিক জুনিয়র একাদশ চ্যাম্পিয়ন এবং রেপার পাড়া একাদশ রানার্সআপ হয়। পরে খেলার ফলাফল নিয়ে হট্টগোল শুরু হলে উপস্থিত জনসাধারণকে শান্ত করার চেষ্টা করেন ইউএনও।

এ সময় ইউএনও বলেন, “খেলায় হার জিত থাকবে, এতে কারও মন খারাপের কারণ নেই।” তখন তিনি উপস্থিত দর্শকদের কাছে খেলার ফলাফলে সন্তুষ্ট কি-না জানতে চান। তখন কয়েকজন বলেন, “খেলার ফলাফল মানি না।” এরপর ইউএনও ক্ষিপ্ত হয়ে খেলার চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ট্রফি ভেঙে ফেলেন।

এ ব্যাপারে পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেহেরুবা ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, “খেলা শেষে হওয়ার পর থেকে হট্টগোল চলছিল। গোল নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে ঝগড়া লেগে যায়। শান্ত করতে দীর্ঘ সময় কথা বলেছি। তাদের বুঝাতে তাদের সম্মতিতে ট্রফি ভাঙা হয়েছে। ট্রফি ভাঙ্গার পরও খেলোয়াড়রা মেডেল গ্রহণ করেছেন। কিন্তু পুরো ভিডিও বাদ দিয়ে আংশিক ভিডিও প্রচার করছে একটি মহল।”