জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা না করলে জাপার বিকল্প ‘অপশন’

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: বিরোধীদলীয় নেতা প্রশ্নে সমস্যার সমাধান না হলে বিকল্প ‘অপশন’ প্রয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

আজ মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্পিকারের আশ্বাসে সংসদে ফিরেছে জাতীয় পার্টি। বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচনের বিষয়ে স্পিকার সময় চেয়েছেন। সমাধান না হলে আমাদের হাতে বিকল্প অপশন আছে।

বিভক্তি সৃষ্টির জন্য এই ষড়যন্ত্র। তবে জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ আছে।

জাতীয় যুব সংহতি আয়োজিত আলোচনাসভায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, দেশের মানুষ যেন খাঁচায় বন্দি হয়ে আছে। দেশের মানুষকে মুক্তি দিতে হবে। দেশের মানুষকে মুক্তি দিতে দেশের যুবসমাজকে এগিয়ে আসতে হবে।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, সোনার খাঁচায় বন্দি একটি পাখি কখনোই সুখী হতে পারে না। ঠিক তেমনই, অধিকার ছাড়া কোনো দেশের মানুষ ভালো থাকতে পারে না। আজ দেশের মানুষের কোনো অধিকার নেই। দেশের মানুষের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ চায় তারা ভোটাধিকার প্রয়োগ করে ইচ্ছেমতো কাউকে ক্ষমতায় বসাবেন। আবার, অপছন্দ হলে তাকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেবেন। মানুষের ভোটাধিকার অকার্যকর করা হয়েছে।

জি এম কাদের বলেন, মানুষ প্রতিবাদ করতে পারছে না, বিক্ষোভ করতে পারছে না। দেশের গণমাধ্যমও অকার্যকর হয়ে যাচ্ছে। ইচ্ছা করলেই সঠিক তথ্য প্রকাশ করতে পারছে না গণমাধ্যম। সাধারণ মানুষ হচ্ছে দেশের মালিক। তাদের মালিকানা ছিনতাই হয়ে গেছে। দেশের মানুষের মালিকানা ফিরিয়ে দিতে হবে।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, রাজনীতি যেন ব্যবসায় পরিণত হয়েছে। যারা রাজনীতি করবে সকল অধিকার যেন তাদের জন্যই। দেশের সাধারণ মানুষের জন্য কোনো অধিকার নেই।

তিনি বলেন, শিক্ষা খাতের বরাদ্দ দিয়ে আধুনিক ভবন তৈরি হচ্ছে, আধুনিক আসবাবপত্র তৈরি হচ্ছে। কিন্তু শিক্ষাব্যবস্থার কোনো উন্নতি নেই। শিক্ষাব্যবস্থার মান দিন দিন অবনতি হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কোথাও ছাত্র আছে শিক্ষক নেই, আবার কোথাও শিক্ষক আছে ছাত্র নেই। শিক্ষাঙ্গনের সর্বোচ্চ ডিগ্রি নিয়ে কোটি কোটি ছাত্র বেকার হয়ে আছে। সরকারের যেন কোনো দায় নেই। দেশের ৭০ থেকে ৮০ ভাগ মানুষ অনাহারে-অর্ধাহারে আছেন কেউ খোঁজ রাখেন না। সরকার দেশের প্রবৃদ্ধি তুলে ধরেন। মেগাপ্রকল্প দেখিয়ে উন্নয়নের কথা বলেন। কিন্তু মেগাপ্রকল্পের নামে একটি চক্র বড়লোক হচ্ছে। তারা দেশ থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করছে।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, সব মেগাপ্রকল্পে বাংলাদেশের যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। প্রয়োজনে বিদেশিদের তত্ত্বাবধানে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দেশের যুবকদের দক্ষ করে গড়তে হবে।

জাতীয় যুব সংহতির আহ্বায়ক ও জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান এইচ এম শাহরিয়ার আসিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভা পরিচালনা করেন জাতীয় যুব সংহতির সদস্যসচিব ও জাতীয় পার্টির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আহাদ ইউ চৌধুরী শাহীন।

অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু, প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আব্দুস সবুর আসুদ, অ্যাডভোকেট মো. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, আলমগীর সিকদার লোটন প্রমুখ বক্তব্য দেন।