ছাত্রলীগের অস্ত্র মহড়া: কুবিতে হল বন্ধ, পরীক্ষা স্থগিত

গতকাল দুপুরে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয় ছাত্রলীগের একাধিক গ্রুপ।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল বন্ধ এবং পরীক্ষা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ছাত্রলীগের কমিটি ‘স্থগিত’ নিয়ে গতকাল শনিবার ক্যম্পাসে পাল্টাপাল্টি অস্ত্র মহড়ায় উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ রবিবার সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

জরুরি সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত সব হল বন্ধ থাকবে।

ছাত্রদের আজ (রবিবার) সন্ধ্যা ৬টা থেকে এবং ছাত্রীদের আগামীকাল সোমবার সকাল ৯টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। আগামী ১০ থেকে ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত সব পরীক্ষা স্থগিত করা হয়।
এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পরিবহন ব্যতীত সব পরিবহন ক্যাম্পাসে প্রবেশ বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আব্দুল মঈনের নির্দেশে রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) আমিরুল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল ছাত্রলীগের অস্ত্রমহড়াকে কেন্দ্র করে প্রক্টরিয়াল বডির পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকি। কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের কমিটি ‘বিলুপ্তি’কে কেন্দ্র করে গতকাল (শনিবার) ফাঁকা গুলি, ককটেল বিস্ফোরণ করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষ অস্ত্র মহড়া দেয় ক্যাম্পাসে।

এর আগে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ফেসবুক পেইজ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) রাত ১১টা ৪৯ মিনিটে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ৩০ মিনিট পর আবার মুছে ফেলা হয়। কমিটি বিলুপ্তির বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নির্বাহী সংসদের একাধিক নেতার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তাদের মধ্যে তথ্যগত অমিল পাওয়া গেছে।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের এমন ধোঁয়াশা সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে শনিবার ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি অস্ত্রের মহড়া, শোডাউন এবং ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটায়। এ সময় গুলিরও শব্দ শোনা গেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।