চুয়াডাঙ্গায় পাবজি টুর্নামেন্টে অংশ নিতে এসে আটক ১০৮

পুলিশ দেখেও বন্ধ করেনি পাবজি খেলা..

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: চুয়াডাঙ্গায় আয়োজন করে নিষিদ্ধ মোবাইল গেমস পাবজি প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার দায়ে ১০৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (২০ জুলাই) দুপুরে শহরতলীর দৌলতদিয়াড় এলাকার একটি কমিউনিটি সেন্টার থেকে তাদের আটক করা হয়। আটক সবাই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন জেলা থেকে পাবজি টুর্নামেন্টে অংশ নেয়ার জন্য চুয়াডাঙ্গায় একত্রিত হয়।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে চুয়াডাঙ্গায় আসে শতাধিক উঠতি বয়সী কিশোর ও যুবক। শহরতলীর দৌলতদিয়াড় এলাকায় একটি কমিউনিটি সেন্টারে রাতভর পাবজি গেমস প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় তারা। এমন খবর পেয়ে বুধবার সকালে ওই কমিউনিটি সেন্টারে অভিযান চালায় থানা পুলিশের একটি দল। এ সময় পাবজি টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া ১০৮ কিশোর-যুবকদের আটক করা হয়।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া কিছু কিশোর-যুবক বলেন, অনলাইনের মাধ্যমে আমন্ত্রণ পেয়ে চুয়াডাঙ্গায় খেলতে আসি। এখানে ১৯টি খেলোয়াড় গ্রুপ অংশ নেয়। প্রতি গ্রুপে ৪ জন করে সদস্য আছে। সকলের সাথে সকলের খেলা হয়। খেলায় বিজয়ীদের ট্রফি উপহার দেয়া হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাব্বুর রহমান জানান, আটককৃত সবাই বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। তাদের সবার কাছ থেকে দামি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি আরও জানান, এখানে অর্থ লেনদেনের বিষয়টি লক্ষণীয়। তারা সরাসরি জুয়া না খেললেও নিজেদের মধ্যে অর্থ আদান প্রদান করে।

চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনিসুজ্জামান বলেন, আটককৃতদের বয়স বিবেচনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। যারা অপ্রাপ্ত বয়স্ক তাদের বিষয়েও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এদিকে, আটককৃতের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসানো হয়। আদালতটি পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম ভূইয়া ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) মাজহারুল ইসলাম।

পরে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীম ভূইয়া ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ২৪ জনকে দুদিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। বাকিরা অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় পরিবারকে জানানো হয়েছে। মুচলেকা শেষে পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হবে।