চসিক কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর ৭৩তম জম্মদিন পালিত

CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ফলে বাংলাদেশ আজ অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। যার কারণে সারা বিশ্ব এখন অবাক হয়ে শেখ হাসিনার দিকে তাকিয়ে আছে। রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, বিচক্ষণতা,গতিশীল নেতৃত্বে, মানবিক মুল্যবোধ দিয়ে তিনি শুধু দেশেই নন, বর্হিবিশ্বেও অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। এতো উন্নয়ন,এতো সাফল্য তিনি বাবার পরিচয়ে কিংবা সরকার প্রধান পরিচয়ে পাননি । পেয়েছেন নিজ যোগ্যতায়।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩ তম জম্মদিন উপলক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আয়োজিত কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

নগরীর ইঞ্জিনিয়ারর্স ইনষ্টিটিউশন চট্টগ্রাম মিলনায়তনে এই সভায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশেনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবু শাহেদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্যানেল মেয়র কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, শিক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউক ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া। এ সময় প্যানেল মেয়র, কাউন্সিলর, সাংবাদিক, শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দেশে এই প্রথম বঙ্গবন্ধুর তনয়া শেখ হাসিনার জম্মদিন উপলক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এই ব্যতিক্রম ধর্মী কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। গত ২৬শে সেপ্টেম্বর নগরীর ২১৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এই প্রতিযোগিতার জন্য শেখ হাসিনার জীবন দর্শন সম্পকিত ১লক্ষ বুকলেট বিতরন করা হয়। এ থেকে ৭০ হাজার শিক্ষার্থী এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করে। প্রতিটি স্কুল ও কলেজ থেকে সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্ত ৩জন শিক্ষার্থীকে নির্বাচিত করা হয়। এই হিসেবে মোট ৬শ ৪৫ জন শিক্ষাথীর্ নির্বাচিত হয়। আজ শনিবার বিকেলে চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ারর্স ইনষ্টিটিউশন মিলনায়তনে ২শত ১৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৬শ ৪৫জন শিক্ষার্থীকে পুরস্কৃত হয়।

এই উপলক্ষে ঘড়ির কাটায় বিকেল ৪টায় চট্টগ্রাম ইঞ্জিনিয়ারর্স ইনষ্টিটিউশন মিলনায়তন শিশু -কিশোরদের মিলন মেলায় পরিণত হয়। এই সময় মিলনায়তন শিশু -কিশোরদের কলকালীতে মুখরিত ছিল। মিলনায়তনে তিল ধরণের ঠাঁই না থাকলেও আয়োজকদের সুশৃংখল ও সুপরিকল্পিত ব্যবস্থাপনা চোখে পড়ার মতো। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের জন্য আলাদা আলাদা নম্বর সম্বলিত বসার স্থান নির্ধারিত ছিল। স্কাউট – গাইড ও রোভার -রেঞ্জ কর্মীরা বিজয়ী শিক্ষার্থীদের তাদের নির্ধারিত স্থানে পৌঁছে দেন। প্রতিটি টেবিলে ৪টি প্রতিষ্ঠানের ১২ জন বিজয়ী শিক্ষার্থীদের আপ্যায়ন ও পুরস্কার পৌঁছে দেয়ার দায়িত্বও তারা পালন করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩ তম জম্মদিন উদ্যাপনের অংশ হিসেবে চসিক কাউন্সিলর, কর্মকর্তা ও শিক্ষক- শিক্ষাথীদের নিয়ে কেক কাটেন সিটি মেয়র।

অনুষ্ঠানে তরিকুল ইসলাম সম্পাদিত “এক বাবার কথা ” শিরোনামে তথ্যচিত্র প্রর্দশিত হয়। চসিকের এই ধরণের আয়োজন জেলা ও জাতীয় পর্যায়ে বিরল।

সিটি মেয়র বলেন, এটি কোনো রাজনৈতিক অনুষ্ঠান নয়। একজন সফল ব্যক্তিকে সম্মান প্রদর্শন করার জন্য এবং তার এ সংগ্রামী জীবন সম্পর্কে সবাইকে অবহিত করার জন্য এই আয়োজন। সে সফল ব্যক্তিটি হলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা, সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তার গতিশীল দেশ পরিচালনার কারণে বাংলাদেশ আজ বিশ্ব দৃষ্টিতে উন্নয়নের রোল মডেল। একজন বিশ্ব নেত্রী হয়েও সাধারণ জীবন যাপনে অভ্যস্ত শেখ হাসিনা এখন প্রজন্মের কাছে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। পূর্বে কোন সরকার প্রধান আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এতবেশি সফলতা অর্জন করতে পারেনি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই পেরেছে আন্তর্জাতিক মন্ডলে সাফল্য অর্জন করতে। যার জন্য তিনি অনেক আন্তর্জাতিক সম্মাননা পদকও পেয়েছেন। এ সম্মাননা শুধু প্রধানমন্ত্রীর নয়, বাংলাদেশের সকল নাগরিকদের।

মেয়র আরো বলেন, যার নেতৃত্বে এদেশ এগিয়ে যাচ্ছে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা আমাদের সবার নৈতিক দায়িত্ব। প্রধানমন্ত্রী হলো আমাদের আদর্শ। তিনি জাতির পথ প্রদর্শক।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের কর্ণদ্বার , বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার কারিগর। নিজেকে সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

মেয়র শিক্ষার্থীদেরকে শিক্ষার আলোতে আলোকিত হয়ে দেশ বিনির্মাণের অভিষ্ট লক্ষে পৌছানোর আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন :
বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি চট্টগ্রাম জেলা শাখার উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৭৩ তম জন্মদিন উপলক্ষে  শনিবার সন্ধ্যায় আন্দরকিল্লাস্থ সমিতির কার্যালয়ে কেক কাটা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। এ সময় সমিতির সভাপতি সালেহ আহমদ সোলায়মান, সহ সভাপতি মো. সাহাবুদ্দিন, আলহাজ্ব আবুল হাসেম, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ খোরশেদ আলম ও সমিতির নেতৃবৃন্দ আলহাজ্ব সগির, মো. নুরুল আবছার চৌধুরী, মো. ইলিয়াছ চৌধুরী, মো. সামসুদ্দিন, মো. লোকমান, মো. আকবর, এস এম কুতুব উদ্দিন, আনিসুর রহমান চৌধুরী, মো. সামসুদ্দিন আহমেদ, আবদুল খালেক ও ইলেকট্রনিক মার্কেট সমিতির সভাপতি মো. মধুসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।