চন্দনাইশে গৃহহীনদের জমিসহ ঘর প্রদান বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে ইউএনও’র মতবিনিময়

ছবি:সিপ্লাসটিভি.নিউজ
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

 চন্দনাইশ প্রতিনিধিঃ মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জমিসহ ঘর প্রদান বিষয়ে মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) বিকালে চন্দনাইশ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা ভিডিও কনফারেন্স রুমে চন্দনাইশে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ও প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাছরীন আক্তার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) গালিব চৌধুরী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকৌশলী মুহাম্মদ জুনাইদ আবছার চৌধুরী, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রিয়াদ হোসেন, মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসান আহসানুল কবিরসহ চন্দনাইশে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ।

সরকারের ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষের জন্য আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার অংশ হিসেবে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের তৃতীয় পর্যায়ের আওতায় আগামী বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভূমিহীন ও গৃহহীনদের কাছে আরও ২৬ হাজার ২২৯টি ঘর হস্তান্তর করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল এই গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষের কাছে ঘরের দলিল ও চাবি হস্তান্তর করবেন।

ব্রিফিংয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাছরীন আক্তার বলেন, চন্দনাইশ উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ হতে তৃতীয় পর্যায়ে ১৫ জন উপকারভোগীকে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে জমি ও গৃহ প্রদান করা হবে। বর্তমান সরকারের শাসনামলে একটি মানুষও যাতে গৃহহীন না থাকে সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

মুজিববর্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না”-মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ভূমিহীন, গৃহহীন, ছিন্নমূল অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর বাসস্থান নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবায়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

ঘরবাড়ি নেই ও ভূমিহীন এমন পরিবারগুলোই আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসের সুযোগ লাভ করবেন। এক্ষেত্রে ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা ও ষাটোর্ধ্ব প্রবীণ ব্যক্তিদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

পুনর্বাসিত পরিবারের সদস্যদের বিভিন্ন উৎপাদনমুখী ও আয়বর্ধক কর্মকাণ্ডের জন্য ব্যবহারিক ও কারিগরি প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। প্রশিক্ষণ শেষে সবাই যাতে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে সে জন্য দেওয়া হবে ক্ষুদ্রঋণ।