চকরিয়া বদরখালী সমিতির নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা

CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

কক্সজারের চকরিয়া উপজেলার বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে শনিবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। পরে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাপতি নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান ভোট গননা শেষে রাত তিনটায় এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

এতে সভাপতি, সহ-সভাপতি, সম্পাদক ও পরিচালক (সদস্যসহ) মোট ১২টি পদে প্রায় ১৫০০ সভ্য (সদস্যের) মধ্যে ১৩৩৪ জন সদস্যের ভোটে সমিতির নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হয়।

এতে চেয়ার প্রতীক নিয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন হাজী নুরুল আলম সিকদার (প্রাপ্ত ভোট-৬৭১)। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি গোলাপ ফুল প্রতীক নিয়ে দেলোয়ার হোছাইন এম এ পেয়েছেন ৬৪৪ ভোট। বাই সাইকেল প্রতীক নিয়ে সহসভাপতি নির্বাচিত হন আলী মোহাম্মদ কাজল (প্রাপ্তভোট-৭৬৪)। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মই প্রতীক নিয়ে আনছারুল করিম পেয়েছেন ৫৫১ ভোট। সম্পাদক পদে চাকা প্রতীকে নির্বাচিত হন নুরুল আমিন জনি (প্রাপ্তভোট-৭৮৬)। নিকটতম প্রার্থী মোহাম্মদ আলী চৌধুরী দেয়াল ঘড়ি প্রতীকে ভোট পেয়েছেন ৫৩৩ ভোট।

সম্পাদকীয় পদ ছাড়াও সমিতির পরিচালক (সদস্য) পদে নির্বাচিত করা হয়েছে ৯ জন সদস্যকে। তারা হলেন, আবদুল আজিজ (বাল্ব প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৫৬৯), হাফেজ আহমদ (তারা প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৫৬১), জসিম উদ্দিন টিটু (মোমবাতি প্রতীক, প্রাপ্ত ৫২০), আহমদ আলী মাঝু (টেবিল প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৫১২), মোহাম্মদ ইছহাক (চশমা প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৪৮২), আলী আকবর (আম প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৪৭৫), কুতুব উদ্দিন (চিংড়ী প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৪৬২), এ.এইচ.এম পারভেজ প্রকাশ মামুন (আপেল প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৪৫৮) ও আবু তাহের (বাঘ প্রতীক, প্রাপ্ত ভোট ৪৪৬)।

নির্বাচনে সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো.তানভীর হোসেন, বদরখালী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এস আই) মো.মহসিন তালুকদার, এএসআই কামাল উদ্দিন ও এএসআই আকবর মিয়া।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাপতি নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, ‘নির্বাচনকে সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও গ্রহণযোগ্য করতে যা যা করার প্রয়োজন ছিল তার সব ব্যবস্থাই আগে থেকে নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনে কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সম্পন্ন হয়েছে।

এর আগে শনিবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হয়।