ওপেনিংয়ে এনামুলের সঙ্গী নাঈম, দেওয়া হয়েছে বার্তা

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: দীর্ঘদিন ধরে ওপেনিংয়ে তামিম ইকবালের সঙ্গী খুঁজে পায়নি বাংলাদেশ। অনেকেই এসেছেন কিন্তু ফর্ম হারিয়ে আবার দল থেকে ছিটকে গেছেন। টি-টোয়েন্টি থেকে তামিম অবসর নিয়ে ফেলেছেন, এই সংস্করণে তাকে নিয়ে তাই ভাবাটাই অবান্তর। এবারের এশিয়া কাপে কে ওপেন করবে বাংলাদেশের হয়ে? আরব আমিরাতের বিমানে ওঠার আগে এটি ছিল বড় প্রশ্ন।

লিটন দাস ছিটকে গেছেন জিম্বাবুয়ে সিরিজ থেকেই। এশিয়া কাপের দলে স্বীকৃত ওপেনার ছিলেন এনামুল হক বিজয় ও পারভেজ হোসেন ইমন। এনামুল ফিরেছেন দীর্ঘদিন পর আর পারভেজের ঝুলিতে অভিজ্ঞতা মাত্র ১ ম্যাচ! শেষ দিকে দলে যুক্ত করা হয় ফর্ম হারিয়ে দলের বাইরে থাকা নাঈম শেখককে।

এক প্রান্তে ব্যাট হাতে নামবেন এনামুল, একপ্রকার নিশ্চিত। আরেক প্রান্তে নাঈম নাকি পারভেজ? উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় এই টুর্নামেন্টে অনভিজ্ঞ পারভেজকে না নামানোর সম্ভাবনাই বেশি। অভিজ্ঞতায় এগিয়ে থাকা নাঈমেই আস্থা রাখতে যাচ্ছে টিম ম্যানেজম্যান্ট। নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন এমন ইঙ্গিতই দিলেন। সেই অনুযায়ী তাকে বার্তাও দেওয়া হয়েছে।

বাশার বলেন, ‘অবশ্যই নাইম একটা অপশন। সে অতীতে আমাদের হয়ে ওপেন করেছে। আপনারা জানেন, আমরা একটু ভিন্ন ক্রিকেট খেলতে চলেছি, এ জিনিসটা নিয়ে অনেক কথা বলেছি। নাইমকেও সেই বার্তা দেওয়া হয়েছে। যদি নাইম খেলে ডেফেনিটলি সেভাবেই খেলার চেষ্টা করবে।’

তবে বাশার এটাও বলেছেন, কে খেলবে এখনো চূড়ান্ত হয়নি, ‘আমরা এখনও ঠিক করিনি কে খেলবে। বিজয় ডেফেনিটলি খেলবে, তার সঙ্গে কে খেলবে তা আগামী এক-দুইদিনের মধ্যে ঠিক করে ফেলবো।’

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের অন্যতম সমস্যা শুরুটা। পাওয়ার প্লেতে যেখানে অন্য দলগুলো দ্রুত রান তুলে এগিয়ে যায় সেখানে হয় উলটোটা। উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে। চাপে পড়ে যায় মিডল অর্ডার। শেষ পর্যন্ত আর ভালো কিছু হয়ে ওঠে না। বাংলাদেশ এই সমস্যা থেকে কাটিয়ে ওঠার চেষ্টায় আছে দীর্ঘদিন ধরে। এবার ভিন্ন কিছু হবে কি না বলে দেবে সময়। ক্রিকেটারদেরও তেমন বার্তা দেওয়ার কথা বারবার বলছে টিম ম্যানেজম্যান্ট।

বাশার বলেন, ‘পরিবর্তন নির্ভর করছে খেলার ওপর, খেলার দিন বোঝা যাবে। অনুশীলনে সবকিছু খোলা মনে করা যায়, সবাই নিজের সেরাটা খেলতে পারে। কথাবার্তায়ও সবাই অনেক ইতিবাচক। আমরা কতটা বদলাতে পেরেছি, কতটা খেলতে পারছি সেটা ম্যাচের দিনই বোঝা যাবে। আমি খুব আশাবাদী। যতদূর কথা বলছি, সবাই আসলে চাচ্ছে এই টুর্নামেন্টে বিশেষ কিছু করতে।’

টি-টোয়েন্টিতে আরব আমিরাতে বাংলাদেশের কোনো সুখস্মৃতি নেই। ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের ৫টি ম্যাচের মধ্যে প্রত্যেকটিতে হেরেছে। শারজাহ ৩০ আগস্ট থেকে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে বাংলাদেশের এশিয়া কাপ। একদিন বাদেই দুবাইতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ। এই দুই ম্যাচের উপর নির্ভর করছে বাংলাদেশের ভবিষ্যত। অধিনায়ক বদল হয়েছে, নতুন কোচ এসেছে এবার পারফরম্যান্সে কি বদল আসবে?